টিডিএন বাংলা ডেস্ক : বহুজন সমাজ পার্টির প্রধান ও উত্তর প্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মায়াবতী বলেছেন, ‘বিজেপি সরকারের ‘সুশাসনে’ শুধু মানুষ নয়, গো-মাতাদেরও করুণ দশা সৃষ্টি হয়েছে।’

গতকাল (বুধবার) এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, “বিজেপি সরকারের ‘সুশাসনে’র যে করুণ অবস্থা, তাতে মানুষের জীবনের তো কোনো মূল্যই নেই। কিন্তু এবার গো-মাতাদেরও পরিস্থিতিও খুব খারাপ। দুর্নীতির কারণে তাদের ক্ষুধা-তৃষ্ণায় ছটফট করে মরার জন্য ছেড়ে দেয়া হয়েছে। সরকারের কাছ থেকে এর হিসাব আরএসএস বা অন্য কেউ নিচ্ছে না কেন?”

মায়াবতী বলেন, “বিজেপিশাসিত রাজ্যে বিশেষ করে হরিয়ানা, রাজস্থান, ছত্তিশগড়ে অফিসিয়াল জালিয়াতির মাধ্যমে গো-মাতাদের উপর নিষ্ঠুরতা চালানো হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী সম্প্রতি বিজেপিশাসিত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করেন কিন্তু তাতে গো-সেবা প্রসঙ্গে বিশেষ ইস্যু কোনো আলোচনা হয়নি যা নিন্দনীয়। গো-সেবা সংশ্লিষ্ট প্রকল্পের বেহাল দশা ও এতে যে ব্যাপক দুর্নীতি তার জরিপ চালানো উচিত যাতে গোশালাগুলোকে নিষ্ঠুর জীবন্ত কসাইখানা হওয়ার হাত থেকে রক্ষা করা যায়।”

পার্সটুডের খবর অনুযায়ী মায়াবতী বলেন, “আরএসএস এবং বিজেপি’র কিছু ‘পাপী মানুষ’ গো-হত্যার নামে বিশেষ করে দলিত ও মুসলিম সমাজের মানুষদের উপর সরকারি প্রশ্রয়ে জুলুম-অতাচার, নিষ্ঠুরতা, মারধর ও তাদের হত্যা পর্যন্ত করাকে ধর্মের সেবা বলে মনে করছে।”

সম্প্রতি বিজেপিশাসিত ছত্তিশগড়ে সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত এক গোশালায় উপযুক্ত পরিচর্যা ও ক্ষুধা-তৃষ্ণায় শতাধিক গরু মারা গেছে। বিজেপি’র এক নেতা ওই গোশালার মালিক ছিলেন। হরিশ ভার্মা নামে ওই নেতাকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।