টিডিএন বাংলা ডেস্ক: দিল্লিতে নয়া সমীকরণ তৈরির লক্ষ্যে বিরোধীদের তৎপরতা তুঙ্গে। কলকাতায় চন্দ্রবাবু নাইডু। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ফোন করলেন অখিলেশ যাদব। বুথ ফেরত সমীক্ষা ভুল। উত্তর প্রদেশে ৫০টির বেশি আসন পাবে এসপি-বিএসপি জোট। সোমবার পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ফোন করে এমনটাই দাবি সমাজবাদী পার্টি নেতা অখিলেশ যাদবের। এদিন দুপুরে মুখ্যমন্ত্রীকে ফোন করেন অখিলেশ। মমতাকে তিনি বলেন, উত্তর প্রদেশের জনমত আঁচ করতে ভুল করেছেন ভোটপণ্ডিতরা। উত্তর প্রদেশে এসপি ও বিএসপি জোট ৫০টির বেশি আসন পাবেই। রবিবার লোকসভা নির্বাচন ২০১৯-এর সপ্তম দফা ভোটগ্রহণের পর প্রকাশিত হয় বুথ ফেরত সমীক্ষার পূর্বাভাস। তাতে ৮০ আসনের উত্তর প্রদেশে এসপি ও বিএসপি জোটকে ২০-৪০টি আসন দিয়েছে অধিকাংশ সংস্থা। এতেই ভেঙে পড়েছে বিরোধী জোটের মনোবল। এই জোটকে সামনে রেখেই কেন্দ্রে অ-কংগ্রেস, অ-বিজেপি সরকার গঠনের স্বপ্ন দেখছিলেন মমতা, চন্দ্রবাবু-সহ একাধিক আঞ্চলিক দলের নেতারা। ২০১৪- সালে উত্তর প্রদেশে ভরাডুবি হয় মায়া ও অখিলেশের। অখিলেশের সমাজবাদী পার্টি জিতেছিল মাত্র ৫টি আসনে। মায়ার বহুজন সমাজ পার্টিকে ফিরতে হয় একেবারে খালি হাতে। এর পরই অস্তিত্ব রক্ষায় কাছাকাছি আসতে শুরু করে ২ পক্ষ। ২০১৮-য় জোট বেঁধে উত্তর প্রদেশে কয়েকটি নির্বাচনে সাফল্য পায় তারা। এর ফলে পরিষ্কার হয় লোকসভা নির্বাচনে জোটের পথ। তবে চিরশত্রু ২ দলের জোট নির্বাচনী সাফল্য না পেলে কতক্ষণ টিকবে তা নিয়ে বরাবর প্রশ্ন তুলেছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।