টিডিএন বাংলা ডেস্ক: সিএএ-এনআরসি বাতিল না-হওয়া পর্যন্ত রাস্তা খোলার প্রশ্ন নেই, তাতে যা হওয়ার হোক, এমনটাই জানিয়ে দিলেন দিল্লির শাহীনবাগের আন্দোলনকারীরা। কেন্দ্রের ধর্মের ভিত্তিতে আনা বিতর্কিত নতুন নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে শাহীনবাগে চলছে টানা ৬৭ দিন ধরে অবস্থান বিক্ষোভ। সম্প্রতি, শাহীনবাগ নিয়ে সুপ্রিমকোর্ট জানিয়েছে, আপনাদের বিক্ষোভ করার অধিকার আছে, বিক্ষোভ করুন কিন্তু রাস্তা বন্ধ করবেন না।

সুপ্রিমকোর্টের পক্ষ থেকে শাহিনবাগের বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে কথা বলার জন্য দু’জন মধ্যস্থতাকারী হিসাবে দুই বর্ষীয়ান আইনজীবী সঞ্জয় হেগড়ে এবং সাধনা রামচন্দ্রনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। দুই মধ্যস্থতাকারীকে সামনে পেয়ে নিজেদের ক্ষোভ, যন্ত্রণা, উদ্বেগ এমনকি কান্নাও উজাড় করে দিল শাহিন বাগ। এমনকি শাহীনবাগের মায়েরা প্রশ্ন ছুড়ল, ‘‘শুধু রাস্তা রোখাটুকুই দেখলেন? কত কোণঠাসা হলে, মহিলাদের এ ভাবে দিনের পর দিন পথে বসে থাকতে হয়, এক বারও ভেবেছেন?’’

দুই মধ্যস্থতাকারীর সামনে শাহীনবাগের আরও প্রশ্ন

• সিএএ-এনআরসি ফিরিয়ে নিলে, আধ ঘণ্টার মধ্যে রাস্তা খালি করব। কিন্তু সরকার সংসদে সেই কথা দিতে পারবে কি?

• দু’মাসেরও বেশি রাস্তায় রয়েছি। প্রধানমন্ত্রী বা অন্য মন্ত্রীর আসার সময় হল না?

• প্রধানমন্ত্রী ‘সব কা সাথ’-এর স্লোগান তোলেন, তাঁর মন্ত্রীই ‘গোলি মারো শালো কো’ বলেন কী করে?

• স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কী ভাবে বলেন শাহিন বাগকে শক দেওয়ার কথা! আমরা এ দেশের নাগরিক নই?

• মুসলিম বেছে আক্রমণ কেন? আমাদের নিরাপত্তার দায় সরকারের নয়? নাকি জামিয়ায় পুলিশি লাঠি, গুলিই আমাদের জন্য বরাদ্দ?

• শুধু রাস্তা আটকে থাকাই একমাত্র সমস্যা? আমরা এ দেশে থাকতে পারব কি না— সেই ভয়ের দাম নেই?

• প্রধানমন্ত্রী সিএএ নিয়ে পিছু হটবেন না। আমাদের সরতে বলা হচ্ছে কেন?

• কখনও দেশদ্রোহী বলা হয়, কখনও বলা হয় টাকা আর বিরিয়ানির লোভে বসে আছি। আমাদের সম্মানে আঘাত করতে বাধল না?

• ধর্মনিরপেক্ষ দেশে কেন ধর্মের ভিত্তিতে নাগরিকত্ব দেওয়ার আইন? পাকিস্তানের এই চেহারা পছন্দ নয় বলেই ভারতকে নিজেদের দেশ মেনেছি! তা হলে নাগরিকত্ব প্রমাণে কাগজ চাওয়া হবে কোন সাহসে?

• ভোটার কার্ড যদি নাগরিকত্বের প্রমাণ না-হয়, তার ভিত্তিতে ভোটে সরকার নির্বাচিত হয় কী ভাবে?

• আজ রাস্তা থেকে উঠে গেলে আগামী প্রজন্ম জিজ্ঞেস করবে, আমাদের অধিকার লুট হওয়ার সময়ে রুখে দাঁড়াওনি কেন?

শাহিন বাগের আইনি-সওয়াল

• জাতীয় সড়কের ১৫০ মিটার না হয় আন্দোলনের জন্য বন্ধ। কিন্তু পুলিশ সমান্তরাল এবং বিকল্প রাস্তা বন্ধ রেখেছে কেন?

• রাস্তা বন্ধ থাকায় অসুবিধার প্রমাণ কোথায়?

• টানা বন্ধ অমিত শাহের বাড়ির সামনের রাস্তাও। অসুবিধা শুধু এখানকার জন্যই কেন?

• কে বলল অ্যাম্বুল্যান্স, স্কুল বাস আটকানো হচ্ছে? আজকেও তো তা পার হল!

• সারা দেশে যত প্রতিবাদী, যন্তর-মন্তর বা রামলীলা ময়দানে তাঁদের সবার জায়গা হবে?

দিল্লি বিধানসভা ভোটের আগে শাহিনবাগকে মূল টার্গেটে রেখেছিল বিজেপি নেতা মন্ত্রীরা। শাহিনবাগ নিয়ে অনেক কূমন্তব্য করেছে গেরুয়া শিবির। খোদ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর মুখ থেকে শুনতে হয়েছে শাহিন বাগকে শক দেওয়ার কথা! এমনকি আন্দোলনকারীদের পাকিস্তানি, দেশদ্রোহী, দেশের গদারও বলা হয়েছে। কখনও বা আবার বলা হয়েছে বিরিয়ানির লোভে প্রতিবাদ করছে।

এক আন্দোলনকারীর কথায়, ‘‘আমরা শখ করে এখানে বসে নেই। বরং রোজ আলোচনা করি, কবে এই প্রতিবাদ শেষ হবে। ফিরতে পারব স্বাভাবিক জীবনে। আমাদেরও সংসার আছে। সন্তান আছে।’’

একাধিবার শাহিনবাগকে টার্গেট করায় মোদী সরকার আর বিশ্বাস করতে পারছেনা শাহিনবাগ। অবিশ্বাসের ক্ষত দগদগ করছে আন্দোলনকারীদের মনে। তবে দুই মধ্যস্থতাকারী আইনজীবী প্রতিনিধি সঞ্জয় হেগড়ে ও সাধনা রামচন্দ্রনের তরফে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে, তাঁরা আন্দোলনকারীদের অধিকার এবং স্বাধীনতা বজায় রাখতে এই এককাট্টা লড়াইয়ের বার্তা সর্বোচ্চ আদালতের দরজায় পৌঁছে দেবেন।

সুত্র- আনন্দবাজার