টিডিএন বাংলা ডেস্ক: দুদিন ধরে বেপাত্তা থাকার পর বুধবার রাতে সিবিআই এর হাতে গ্ৰেফতার হন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরম। আইএনএক্স মিডিয়া কাণ্ডে দিল্লির জোড় বাগের বাড়ি থেকে চিদম্বরমকে গ্রেফতার করেন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার আধিকারিকরা।

এরপর তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় দিল্লিতে সিবিআই-এর সদর দফতরে। সেখানে তাঁর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়। সূত্রের খবর, রাতভর তাঁকে জেরা করেন সিবিআই আধিকারিকরা। আজই চিদম্বরমকে বিশেষ সিবিআই আদালতে তোলা হবে। দুপির দুটোর সময় তাঁকে আদালতে তোলার সম্ভাবনা। ১৪ দিনের সিবিআই হেফাজতে নেওয়া হতে পারে প্রাক্তন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে।

মঙ্গলবার থেকে আচমকাই বেপাত্তা হয়ে যান চিদম্বরম। তাঁর বিরুদ্ধে লুকআউট নোটিস জারি করে ইডি-সিবিআই। রক্ষাকবচ পেতে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন চিদম্বরমের দুঁদে আইনজীবীরা- সলমন খুরশিদ, কপিল সিব্বাল এবং অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি। কিন্তু প্রধান বিচাপতি অযোধ্যা মামলায় ব্যস্ত থাকায় মামলা আর ওঠেনি। ফলে চিদম্বরমের গ্রেফতারি অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল। অবশেষে ২৭ ঘণ্টা পর গতকাল সন্ধেয় কংগ্রেসের সদর দফতরে হাজির হয়ে সাংবাদিক বৈঠক করেন পি চিদম্বরম। নিজেকে নির্দোষ বলে দাবি করেন তিনি। তখনই কংগ্রেসের সদর দফতরের উদ্দেশে রওনা দেয় সিবিআই-ইডি। কিন্তু তদন্তকারীরা পৌঁছনোর আগেই দলের দফতর ছাড়েন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী। জোড়বাগে নিজের বাড়িতে চলে যান। তাঁকে পিছু ধাওয়া করেন সিবিআই কর্তারা। দরজা বন্ধ থাকায় বাড়ির পাঁচিল টপকে বাড়িতে ঢুকে পড়েন তাঁরা। গ্রেফতারি এড়াতে সবরকম চেষ্টাই করেছিলেন চিদম্বরম। কিন্তু গোয়েন্দা সংস্থার আধিকারিকদের সামনে ধরা দেওয়া ছাড়া আর কোনও পথ খোলা ছিল না চিদম্বরমের।