টিডিএন বাংলা ডেস্ক: দেশজুড়ে নাগরিকত্ব আইনের বিক্ষোভের মধ্যেই ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি (এনআইএ) অ্যাক্ট-কে ‘অসাংবিধানিক’ আখ্যা দিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হল ছত্তিশগড় সরকার। অভিযোগ এই আইন রাজ্যের সার্বভৌমত্বে আঘাত হানতেই এই আইন তৈরি করেছে কেন্দ্র সরকার। এতে কেন্দ্রের নিজস্ব তদন্ত করার ক্ষমতা হরণ করা হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টে এই নিয়ে এমনই নালিশ জানিয়েছে ছত্তিশগড় সরকার। এনআইএ নিয়ে এই প্রথম কোনও রাজ্য শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হল।

মঙ্গলবারই সংবিধানের ১৩১ ধারা মেনে নাগরিকত্ব আইনকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিল কেরালা সরকার। তার ঠিক পরদিনই সেই ১৩১ ধারাতেই ‘এনআইএ’ আইনকে বাতিল করার দাবি জানিয়ে ছত্তিশগড় সরকার আদালতের দ্বারস্থ হওয়ায় দেশজুড়ে শোরগোল পড়ে গিয়েছে। কেন্দ্রের বিরুদ্ধে কোনও বিষয় নিয়ে রাজ্যগুলিকে সুপ্রিম কোর্টে সরাসরি আবেদন করার কথা বলা আছে ১৩১ নং ধারায়।

ছত্তিশগড় সরকারের বক্তব্য, ‘‘এনআইএ আইন কোনও ঘটনায় রাজ্যের পুলিশ-প্রশাসনের তদন্ত করার অধিকার ছিনিয়ে নিয়েছে। একই সঙ্গে কেন্দ্রের হাতে দিয়েছে একচ্ছত্র ও স্বেচ্ছাচারের ক্ষমতা। সংবিধানে যে রাজ্যগুলির স্বায়ত্বশাসনের কথা বলা হয়েছে, এনআইএ আইন তার পরিপন্থী।’’

আবেদনে ছত্তিশগড় সরকার বলেছে, ‘শ্রদ্ধার সঙ্গে রাজ্য মনে করছে যে ‘এনআইএ’ আইন সংবিধানবিরোধী এবং সংসদের রীতির পরিপন্থী। কারণ এই আইন কেন্দ্রকে একটি তদন্তকারী সংস্থা গঠন করার ক্ষমতা দিয়েছে। কিন্তু সংবিধান অনুযায়ী এটা রাজ্যের নিয়ন্ত্রণাধীন বিষয়।’

ছত্তিশগড়ের অ্যাডভোকেট জেনারেল সতীশ বর্মা বলেন, নির্দিষ্ট কিছু ঘটনা তথা মামলার কথা উল্লেখ করা হয়েছে, যেখানে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে এনআইএ-কে ব্যবহার করা হয়েছে।

২০০৮ সালে সন্ত্রাস দমনের জন্য বিশেষ ওই সংস্থা তৈরি করা হয়। ২৬/ ১১-র মুম্বই হামলার পর এই সংস্থাটি তৈরি করেছিলেন তৎকালীন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পি চিদাম্বরম। আমেরিকায় এফবিআইয়ের মতই শক্তিশালী হয়ে ওঠে এই তদন্তকারী সংস্থা। সিবিআইয়ের থেকেও বেশি ক্ষমতা দেওয়া হয়েছিল এনআইএ-কে।

আমেরিকার এফবিআই-এর ধাঁচে সেই সময় তৈরি হয় এনআইএ। সিবিআই-এর চেয়েও বেশি ক্ষমতাধর সম্পূর্ণ স্বায়ত্বশাসিত এই বাহিনী মূলত জঙ্গি কার্যকলাপ বা জঙ্গি হামলার তদন্ত করে। কোথাও জঙ্গি হামলার ঘটনা ঘটলে বা জঙ্গি কার্যকলাপের তদন্ত করতে যে কোনও সময় যে কোনও রাজ্যে যেতে পারেন এই বাহিনীর গোয়েন্দারা। যে কোনও ব্যক্তিকে গ্রেফতারও করতে পারেন তারা। তদন্ত বা গ্রেফতারি, কোনও ক্ষেত্রেই রাজ্য সরকারের অনুমতি নিতে হয় না এনআইএ-কে। এখানেই প্রশ্ন তুলেছে ছত্তিশগড় সরকার।