টিডিএন বাংলা ডেস্ক : কে চন্দ্রশেখর রাওবতেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী। এ পদে থেকেই নিজেকে আমজনতার কাতারে নিচ্ছেন তিনি। তা-ও আবার কুলির জায়গায়। সপ্তাহে দুই দিনের জন্য পয়সার বিনিময়ে কুলির কাজ করবেন সংক্ষিপ্ত নাম কেসিআর হিসেবেও পরিচিত এ মুখ্যমন্ত্রী।

‘গুলাবী কুলি দিনালু’ বা ‘গোলাপি শ্রমিকদের দিন’ নামে সপ্তাহব্যাপী চালু করা এক উদ্যোগে নিজেকে শরিক করছেন তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী। দৈনিক মজুরি ভিত্তিতে চাইলে যে কেউ তাঁকে ভাড়ায় খাটাতে পারবেন। অভিনব এ কর্মসূচি শুরু হচ্ছে আজ শুক্রবার থেকেই।

শুধু নিজে মুট বইতে নামছেন না তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী; রাজ্যের সব মন্ত্রী, সাংসদ, দলের নেতা ও কর্মীর প্রত্যেককে দুই দিনের জন্য ঘাম ঝরানো এ কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন। এর বিনিময়ে তাঁরা যে অর্থ পাবেন, তা জমা পড়বে নিজেদের রাজনৈতিক দল তেলেঙ্গানা রাষ্ট্রীয় সমিতির (টিআরএস) তহবিলে। এ থেকেই দলের বার্ষিক সম্মেলনের খরচের কিছুটা মেটানো হবে।

‘গুলাবী কুলি দিনালু’ কর্মসূচি উপলক্ষে তেলেঙ্গানার কয়েকটি স্থানে আজ সমাবেশ হবে। সবচেয়ে বড়টি হবে রাজ্যের কেন্দ্রস্থল ওয়ারাঙ্গলে। টিআরএস নেতারা আশা করছেন, দুই দিনের জন্য কুলিগিরি করে তাঁরা বেশ ভালো অর্থই কামাবেন। যা দিয়ে অনায়াসে মেটানো যাবে দলীয় সম্মেলনে আসা-যাওয়া ও আপ্যায়নের খরচ।

মুখ্যমন্ত্রী কুলির কাজ করার কথা জানালেও তিনি ঠিক কোন ধরনের কাজ করবেন, তা নির্দিষ্ট করে বলেননি। তবে এ কাজে অন্যদের যে তিনি নেতৃত্ব দিচ্ছেন, তা জানিয়ে দিয়েছেন স্পষ্ট করেই।

কেসিআর জানিয়েছেন, সদস্য বাড়াতে দলের নেওয়া সাম্প্রতিককালের পদক্ষেপে দারুণ সাফল্য এসেছে। তাঁদের সদস্যসংখ্যা এখন ৭৫ লাখের বেশি। ২০১৪ সালে যখন তাঁরা ভারতের নবীনতম রাজ্য তেলেঙ্গানার ক্ষমতায় আসেন, তখনো তা ছিল ৫২ লাখের কম। মুখ্যমন্ত্রী জানান, তাঁরা দলের সদস্যদের কাছ থেকে সদস্য ফি বাবদ প্রায় ৩৫ কোটি রুপি পেয়েছেন। এতে দলের ব্যাংক হিসাব সমৃদ্ধ হয়েছে।