টিডিএন বাংলা ডেস্ক: তাবলীগ জামাতের সম্পর্কে সাম্প্রদায়িক প্রচার ও মুসলিমদের বিরুদ্ধে লাগাতার ‘ঘৃণার রাজনীতি’ করা হচ্ছে। এমনকি এক নাগারে মিথ্যে প্রচার করেই চলেছে মিডিয়া। এমনটাই অভিযোগ তুলে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হল জমিয়তে উলেমায়ে হিন্দ। তাঁদের দাবি, পরিকল্পিত ভাবে ভুয়ো খবর ছড়ানো হচ্ছে মুসলমান সমাজের বিরুদ্ধে। জামিয়াতের অভিযোগের আঙুল সংবাদমাধ্যমের একাংশের দিকে। ‘মিথ্যে খবর ছড়ানো’ বন্ধ করতে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ তাঁরা।

হাসপাতালে তাবলীগ জামাতের সদস্যের থুথু ছেটানোর অভিযোগ মিথ্যে। তদন্তে উন্মোচিত হয়েছে রহস্য। থুথু ছেটানোর অভিযোগ খারিজ করেছে ছত্রিশগড়ের রায়পুর এইমস হাসপাতাল। হাসপাতালের তরফে জানানো হয়েছে, করোনা আক্রান্ত ওই তাবলীগ জামাতের সদস্য কোরবার বাসিন্দা। কোনও চিকিৎসক বা স্বাস্থ্যকর্মীর সঙ্গে সে অভব্য আচরণ করেনি। এমনকি তার বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ মিথ্যে। হাসপাতালের সব নিয়ম মেনে চলছে সে।

সুত্রের খবর, জমিয়তের আইনি শাখার সেক্রেটারি সোমবার আইনজীবী ইজাজ মকবুল মারফত এই পিটিশান দায়ের করেছেন। তাঁর অভিযোগ, মুসলমান সমাজকে কলঙ্কিত করতেই তবলিগীর নাম ব্যবহৃত হচ্ছে। আসলে মুসলিমদের বিরুদ্ধে ‘ঘৃণার রাজনীতি’ করা হচ্ছে।

জমিয়তের দাবি, এই পরিস্থিতিকে ব্যবহার করে এমন বহু ছবি ও ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ছে যা ভিত্তিহীন। একই সঙ্গে সংবাদমাধ্যমের একাংশেও মুসলিম সম্প্রদায়ের একাংশের বিরুদ্ধে বিদ্বেষ ছ়ড়ানো হচ্ছে, এমনটাই অভিযোগ জমিয়তের। সেক্ষেত্রে সংবাদ পরিবেশনের ক্ষেত্রে গণমাধ্যমের বাড়তি দায়িত্ব নেয়, তা সুনিশ্চিত করতেই শীর্ষ আদালতে যায় জমিয়ত।