টিডিএন বাংলা ডেস্ক: দেশের বুকে হিন্দুত্ববাদী আরএসএস ও শাষক দল বিজেপির কারনে দেশে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা বেড়েছে, একথায় বললেন দ্বারকা পীঠের শঙ্করাচার্য স্বরূপানন্দ সরস্বতী। তিনি আরও বলেন, আরএসএস  ভারতের হিন্দুত্বের নামে সবথেকে বেশি ক্ষতি করেছে এবং দেশে ক্রমবর্ধমান সাম্প্রদায়িক উত্তেজনার পেছনেও এই দুই দলের ভূমিকা রয়েছে।
সম্প্রতি এক ইংরেজী সংবাদপত্রকে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে শঙ্করাচার্য সরস্বতী বলেন – দেশে হিন্দুত্বের ধারণায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করেছে আর এস এস এবং বিজেপি। আর এস এস এবং বিজেপির জন্যই দেশে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা বেড়েছে বলেও তাঁর দাবি।
আর এস এস প্রধান মোহন ভাগবতের বক্তব্য খন্ডন করে স্বরূপানন্দ সরস্বতীর বক্তব্য – ভাগবত বলেছেন হিন্দু বিবাহ আসলে এক চুক্তি। যা সম্পূর্ণ ভুল। ভাগবত আরও বলেছেন, এদেশে যে জন্মাবে সেই হিন্দু। তাহলে আমেরিকা বা ইংল্যান্ডে জন্মানো হিন্দু পিতামাতার সন্তান কী হিসেবে গণ্য হবে? ভাগবতের এই চিন্তা সমাজের মূল ধারাকে ধ্বংস করে দেবে বলেও তাঁর অভিমত। ভারতে যে থাকবে, সে ই হিন্দু – ভাগবতের এই বক্তব্যেও বিশ্বাসী নন স্বরূপানন্দ সরস্বতী।
অবশ্য এবারই প্রথম নয়। এর আগেও একাধিকবার আর এস এস এবং বিজেপির বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন শঙ্কররাচার্য সরস্বতী। তাঁর স্পষ্ট বক্তব্য, যিনি বেদ এবং শাস্ত্রে বিশ্বাসী হবেন তিনি হিন্দু, যিনি কুরআন এবং হাদিশে বিশ্বাসী হবেন তিনি মুসলিম এবং যিনি বাইবেলে বিশ্বাসী হবেন তিনি খ্রিস্টান। এ নিয়ে বিতর্কের কিছু নেই।
এর আগে ২০১৬ সালের এপ্রিল মাসে স্বরূপানন্দ সরস্বতী জানিয়েছিলেন – দেশে বিজেপি সরকার আসার পর গোমাংসের রপ্তানী এবং গোহত্যা বেড়েছে।