টিডিএন বাংলা ডেস্ক: তথাকথিত গোরক্ষকদের তাণ্ডবের কোনও বিরাম নেই। বরং তা ক্রমশ ভয়াবহ আকার নিচ্ছে। এবার মধ্যপ্রদেশে গোরক্ষার নামে তাণ্ডবের ছবি প্রকাশ্যে এল। আবার প্রশ্ন উঠছে, আইন হাতে নেওয়ার ঘটনা ঘটলেও প্রশাসন চুপ কেন? রবিবার সকালে ইনদৌরে গরু পাচারকারী সন্দেহে ২ যুবককে পেটানো হয় বলে অভিযোগ। কেসরবাগ সেতুর কাজে গাড়ি দাঁড় করিয়ে তল্লাশি চালায় তথাকথিত গোরক্ষকরা। ওই গাড়িতে গরু ছাড়াও মাংসও ছিল বলে অভিযোগ। এরপর ওই দুই যুবককে গাড়ি থেকে নামিয়ে বেধড়ক মারা হয়। গোরক্ষকদের হাত থেকে পালিয়ে বাঁচে আরও এক ব্যক্তি। এ ঘটনায় হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের কর্মীরা যুক্ত ছিলেন বলে অভিযোগ।

রাজেন্দ্রনগর থানার ইনস্পেক্টর সুনীল শর্মা জানান, গো-হত্যা আইন লঙ্ঘন করার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে বছর কুড়ির ওই দুই যুবককে। তাঁদের নাম নাদিম এবং ইমরান। পুলিসের দাবি, তাঁদের শরীরে আঘাতের কোনও চিহ্ন নেই। ওই গাড়িটি উদ্ধার করে পুলিস। স্থানীয় পশু চিকিৎক দিয়ে পরীক্ষা করে জানানো হয়, গাড়িতে গরু ও মাংস ছিল।

উল্লেখ্য, মধ্য প্রদেশের কংগ্রেস সরকারও গো-তাণ্ডবের মোকাবিলা করতে কড়া আইন নিয়ে আসছে। বিজেপি জমানায় তৈরি করা গো-হত্যা বিরোধী আইনের আওতায় পড়বে এটি। প্রশ্ন হল গোরক্ষকরা তাণ্ডব দেখাল, ২ ব্যক্তিকে পিটিয়ে মারল, তারপরও যাঁরা আক্রান্ত তাঁদের গ্রেফতার করা হল? এ কেমন আইন!