টিডিএন বাংলা ডেস্ক: অবশেষে স্বস্তি।  রাহুল গান্ধীর মনোনয়ন বৈধ বলে ঘোষণা করলেন অমেঠির রিটার্নিং অফিসার। অমেঠি কেন্দ্রে রাহুলের মনোনয়ন জমা পড়ার পরই শুরু হয় তুমুল বিতর্ক। সে কেন্দ্রের নির্দল প্রার্থী প্রশ্ন তোলেন রাহুলের নাগরিকত্ব নিয়ে। পাশাপাশি, তাঁর শিক্ষাগত যোগ্যতা, পাসপোর্ট নিয়েও প্রশ্ন ওঠে। এর ফলে রাহুলের মননোয়নপত্র যাচাই (স্ক্রুনিটি) পিছিয়ে ২২ এপ্রিল করার সিদ্ধান্ত নেয় রিটার্নিং অফিসার। এমনকি অভিযোগের জবাব দিতে সময় চেয়ে নিয়েছিলেন রাহুলের কৌঁসুলিও।

কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর বিরুদ্ধে ভুয়ো নথি হলফনামা জমা করার অভিযোগ ওঠে। বলা হচ্ছে, ১৯৯৪ সালে ফ্লোরিডার রোলিংস কলেজের স্নাতকের শংসাপত্র উল্লেখ করা হয়নি ২০০৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে। ১৯৯৫ সালে কেমব্রিজ ট্রিনিটি কলেজের এম ফিল করা রাহুল গান্ধী যে দাবি করেছেন, ২০০৪ সালে অর্জন করেন। পাশাপাশি, রাহুলের ব্রিটেনের নাগরিকত্ব রয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

বিজেপি নেতা সুব্রহ্মণ্যম স্বামী দাবি করেন, ১৯৯৪ সালে রাউল ভিঞ্চি নামে পাসপোর্ট প্রদান করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। যা সম্পূর্ণ বেআইনি বলে দাবি সুব্রহ্মণ্যমের।