টিডিএন বাংলা ডেস্ক: দীর্ঘ নাটকের পর মহারাষ্ট্রে বর্তমানে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করা হয়েছে। সরকার গড়তে ব্যর্থ হয়েছে সব দলই। সেই সময় কর্নাটকে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এইচডি কুমারস্বামী বললেন, মহারাষ্ট্রে কংগ্রেসের উচিত বিজেপি’‌র সঙ্গে জোট করে সরকার গঠন করা। শিবসেনা উগ্র হিন্দুত্ববাদে বিশ্বাসী। সেই তুলনায় বিজেপি কিছুটা নরমপন্থী। কংগ্রেসের তাতে খাপ খাইয়ে নিতে অসুবিধা হবে না।’‌ এই মন্তব্য কংগ্রেসকে কটাক্ষ করতেই বলে মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা।

উল্লেখ্য‌ ‌কংগ্রেসকে সঙ্গে নিয়ে কর্নাটকে বিজেপিকে আটকাতে জোট সরকার করেছিলেন কুমারস্বামী । আবার মুখ্যমন্ত্রীও হয়েছিলেন। তবে বিজেপি’‌র ছলায় সেই জোট সরকার ভেঙে গিয়েছে। কংগ্রেসের সঙ্গ ত্যাগ করেছেন কুমারস্বামী। কর্নাটকে এখন বিজেপি সরকার। এখন প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে কংগ্রেসের কথা মুখে বললেও তলে তলে কুমারস্বামী কী বিজেপি’‌র সঙ্গে আঁতাত করছেন?‌

উল্লেখ্য, মহারাষ্ট্রের মতো কর্নাটকেও একই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। ২০১৮ সালে বিজেপিকে ঠেকাতে শেষ পর্যন্ত কুমারস্বামীকে সমর্থন দেয় কংগ্রেস। তিনি মুখ্যমন্ত্রীও হন। কংগ্রেস–জেডিএস জোট সরকার তৈরি হয়। তবে নানা কারণে এক বছর যেতে না যেতেই সেই সরকার পড়ে যায়। মুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে ইস্তফা দিতে হয় কুমারস্বামীকে। তিনি কংগ্রেসের জোট ছেড়ে বেরিয়ে আসেন। আগামী ৫ ডিসেম্বর কর্নাটকের ১৫টি কেন্দ্রে পুনর্নির্বাচন রয়েছে। যার মধ্যে জেডিএস একার ক্ষমতায় ৮ থেকে ১০টি আসনে জয়ী হবে বলে দাবি করেছেন কুমারস্বামী। তবে দেখার বিষয় হল তিনি কথা রাখতে পারেন কিনা।