টিডিএন বাংলা ডেস্ক: টানা গত চার দিন ধরে দেশের রাজধানী দিল্লিতে রাষ্ট্রীয় মদতে গেরুয়া সন্ত্রাসীরা তান্ডব চালাচ্ছে। এমনটাই অভিযোগ তুলে সরব হয়েছে বুদ্ধিজীবী থেকে বিরোধীরা। বিজেপি বিধায়ক কপিল মিশ্রর উষ্কানীমূলক সাম্প্রদায়িক হুমকির পরেই এমন ঘটনা। সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী এখনও পর্যন্ত একজন পুলিশ কর্মীসহ ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়াও ২০০ জনেরও বেশি মানুষ আহত হয়েছে। মসজিদ, ঘরবাড়ি ও দোকানে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে। তবে সবচেয়ে বড় বিষয় হল পুরো তাণ্ডব চালানো হয়েছে প্রকাশ্যে এবং পুলিশের সামনে। আর এতে দিল্লি পুলিশ নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করছে।

হিংসার ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে গোয়েন্দা অঙ্কিত শর্মার। চাঁদবাগের এক ড্রেন থেকে উদ্ধার করা হয়েছে তাঁর মৃতদেহ। কিন্তু মঙ্গলবার রাতে ছেলে নিখোঁজের অভিযোগ জানাতে গেলেও গ্ৰাহ‍্য করেনি দিল্লি পুলিশ। বুধবার এমন বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন মৃত ওই আইবি আধিকারিকের মা।

জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কাজ সেরে বাড়ি ফেরার পথে উন্মত্ত জনতার সামনে পড়ে গিয়েছিলেন অঙ্কিত। তখনই গণপ্রহারে মৃত্যু হয় তাঁর। কিন্তু মঙ্গলবার রাতে ছেলে নিখোঁজ এই প্রসঙ্গে পুলিশের দ্বারস্থ হলেও কোনও সক্রিয়তা দেখানো হয়নি। একমাত্র বুধবার সকালে প্রথম এফআইআর দায়ের করে পুলিশ। দিল্লি পুলিশের বিরুদ্ধে এইভাবে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন ওই বৃদ্ধা।

এদিকে আবার ছেলের মৃত্যুর জন্য আম আদমি পার্টিকে দায়ী করেছেন অঙ্কিত শর্মার বাবা। পেশায় আইবি আধিকারিক রবিন্দর শর্মা বলেছেন, আমার ছেলেকে মেরে পালিয়েছে আপ নেতা। পুলিশ ওকে গ্রেফতার করে শাস্তি দিক। বুধবার বেলার দিকে অঙ্কিতের দেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তে পাঠানো হয়েছে। এমনটাই দিল্লি পুলিশ সূত্রে খবর।