টিডিএন বাংলা ডেস্ক : পাকিস্তান থেকে নির্বাসিত নবী বিরোধী তারেক ফাতেহ ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে বিশেষ করে জি নিউজের মাধ্যমে মুসলিমদের অপমানিত করার চেষ্টা করে চলেছেন অবিরত। জি নিউজের একটি বিশেষ অনুষ্ঠান ‘ফতেহর ফাতওয়া’ বিষয়ক অনুষ্ঠানে তিনি মুসলিম হিতৈষি সেজে ইসলাম ধর্মের বিরুদ্ধে কটুক্তি করে যাচ্ছেন। ফাতেহর এহেন বক্ত্যব্যে ক্ষিপ্ত মুসলিম সমাজের মুফতি ইয়াসির নাদিম আল ওয়াজিদী এবং তার সঙ্গীরা সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে তাকে চ্যালেঞ্জ করেছিল বিতর্ক সভায় অংশ নেওয়ার জন্য। কিন্তু তারিক ফাতেহ কোন ধরণের বিতর্ক সভায় অংশ নিতে অস্বীকার করেন।

এতকিছুর পরেও তারিক ফাতেহ বিদ্বেষ মূলক বয়ান দিতেই থাকেন। যার কারণে দেশ জুড়ে ফাতেহ এবং জি নিউজ ব্যান করার দাবী জানায় মুসলিম সংঠনগুলি। শুধু তাই নয় মুফতি ইয়াসির নাদিম আল ওয়াজিদী এবং মেহেদী হাসানের ডাকে ট্যুইটার ট্রেন্ড অভিযান চালানো হয় ফাতেহর বিরুদ্ধে এবং ট্রেন্ডে ওই আহ্বান ৬ষ্ঠ স্থান অধীকার করে।
অন্যদিকে ফতেহর বয়ানের বিরোধীতা করে তলবা এ মাদারিস দেওবন্দ পথে নেমে বিরোধীতা করে। তাদের পক্ষ থেকে জানানো হয়, জি নিউজের এই অনুষ্ঠান এবং তারিক ফতেহকে যদি কেন্দ্রীয় সরকার এবং প্রশাষন নিষিদ্ধ না করে তাহলে আমরা আবারো পথে নামতে বাধ্য হব।
শনিবার সন্ধ্যায় দেওবন্দে মাদ্রাসার ছাত্র সহ শহরের প্রচুর মুসলিম জি নিউজ নিষিদ্ধ করার এবং তারিক ফাতেহর ফাঁসির আবেদন করে স্লোগান দেন।
উল্ল্যেখ্য যে, জি নিউজে তারিক ফাতেহর সঞ্চালনায় ‘ফতেহর ফাতওয়া, বিষয়ক অনুষ্ঠান করে মুসলিম বিদ্বেষী, উলামা বিদ্বেষী, মাদ্রাসা বিদ্বেষী বক্ত্যব্য দেওয়া হচ্ছে।
এদিন তারিক বিরোধী সভায় মৌলানা মাহমুদ সিদ্দিকী বলেন, “ফাতেহ যেভাবে ইসলাম অবমাননা করে চলেছে তা কোন মতেই মেনে নেওয়া যায়না।” ‘ফতেহর ফাতওয়া’ দেশকে সাম্প্রদায়িকতার দিকে ঠেলে দিচ্ছে বলেও দাবী করা হয় এদিনের সভায়।
এদিন ক্ষিপ্ত জনতাকে মেহেদী হাসান এনি এবং অন্যান্য বিশিষ্ট ব্যাক্তিরা শান্ত করেন। এদিন তারা তারিক ফাতেহর বিরুদ্ধে কড়া আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার দাবী করেন।
এদিনের সভায় কাসিম ওসমানী, নাদিম আলভি, মেহতাব কাসেমী, নাবিল মাসউদী, আফসার আলি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।