টিডিএন বাংলা ডেস্ক: পুলওয়ামা কাণ্ডে জঙ্গিদের সঙ্গে একই গাড়িতে ধরা পড়া জম্মু-কাশ্মীরের ডিএসপি দেবেন্দ্র সিংয়ের নাম জড়াল পুলওয়ামা কান্ডেও। সরকারিভাবে বিষয়টি স্বীকার করা না হলেও গোয়েন্দা সংস্থা দেবেন্দ্র সিংকে সন্দেহের তালিকা থেকে বাদ দিতে নারাজ। সংশ্লিষ্ট বিষয়টি নিয়ে রাজনীতিও শুরু করেছে কংগ্রেস। সংসদে কংগ্রেসের দলনেতা অধীর চৌধুরী এবিষয়ে সঠিক তদন্তের দাবি জানিয়েছেন।

শনিবার দুই জঙ্গি ও তাদের এক সহযোগীকে নিজের গাড়িতে করে নিয়ে যাওয়ার সময়ে গ্রেফতার হন জম্মু-কাশ্মীরের ডিএসপি। সেই গাড়ি থেকে আবার পাঁচটি গ্রেনেড উদ্ধার হয়। ডিএসপির বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে মেলে একাধিক একে ৪৭ সিরিজের রাইফেল ও প্রচুর নগদ টাকা। এর পর থেকেই দেশের গোয়েন্দা সংস্থাগুলির পাশাপাশি সামরিক বাহিনীর পক্ষেও দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ চালানো হচ্ছে।

জঙ্গিদের গাড়িতে নিয়ে যাওয়া এবং নিজের বাড়িতে আশ্রয় দেওয়ার জন্য তাদের কাছ থেকে বারো লাখ টাকা নেওয়া কথা স্বীকার করে নিয়েছেন বলে গোয়েন্দা সংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে। এর সঙ্গে ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ তারিখে পুলওয়ামা কাণ্ডে সিআরপিএফ কনভয়ে জঙ্গি হামলায়তেও তার হাত ছিল বলে সন্দেহ করছে গোয়েন্দা ও সামরিক বাহিনী।

এরই প্রেক্ষিতে সংসদে কংগ্রেসের দলনেতা অধীর চৌধুরী বলেছেন, বিষয়টির পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হওয়া জরুরি। দেশের শত্রুকে জাতি ও ধর্মের ভিত্তিতে না দেখে তার শত্রু হিসেবেই বিচার করা উচিত।

দেবেন্দ্রর পুলওয়ামা কাণ্ডে যুক্ত থাকার সন্দেহ দৃঢ় হয়েছে কারণ পুলওয়ামা হামলার আগে ২০১৮ সালের শেষের দিকে দেবেন্দ্র শ্রীনগরে হাইজ্যাক বিরোধী ইউনিটে বদলি হন। তার পোস্টিং হয় শ্রীনগর বিমানবন্দরে। তার আগে পর্যন্ত তিনি পুলওয়ামা দার জেলায় আর্মড গার্ডের ডিএসপি ছিলেন। তবে কোনও বিষয়ই ছোট করে দেখা হচ্ছে না, সকল বিষয় পুঙ্খনাপুঙ্খ বিচার করা হচ্ছে বলে গোয়েন্দা সূত্রে জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বছর ১৪ ফেব্রুয়ারি সিআরপিএফ কনভয়ে একশো কেটি বিস্ফোরক নিয়ে একটি গাড়ি বিস্ফোরণ ঘটায়। ফলে মৃত্যু হয় ৪৪ জন জওয়ানের।