টিডিএন বাংলা ডেস্ক: কিছুদিন আগে লকডাউন চলাকালীন দিল্লির আনান্দবিহারে হাজার হাজার পরিযায়ী শ্রমিক বাড়ি ফেরার জন্য একসাথে জড়ো হয়েছিল। সেই সময় তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছিল সরকার। তারপর গুজরাটে খাবার ও বেতনের দাবিতে কাপড় কারখানার শ্রমিকরা রাস্তায় নেমে তীব্র বিক্ষোভ দেখায়। এবারও সেই পরিযায়ী শ্রমিকদের বিক্ষোভে উত্তাল হল মুম্বই শহর। বাড়ি ফেরার দাবিতে পথে নেমে তাদের দাবি, হয় বাড়ি ফেরার ব্যবস্থা করুক কেন্দ্রীয় সরকার, নইলে তাঁদের পেট ভরানোর ব্যবস্থা করুক।

করোনার প্রকোপ ঠেকাতে গত ২৪ মার্চ মধ্যরাত থেকে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউন ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় সরকার। কিন্তু তাতেও করোনার আক্রমণ ঠেকানো যায়নি। বরং গত ২১ দিনে আক্রান্তের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে।

তার জেরে এ দিন ফের ৩ মে পর্যন্ত দ্বিতীয় দফায় লকডাউন ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় সরকার। তাতেই মুম্বইয়ের রাস্তায় নেমে আসেন হাজার হাজার মানুষ। বান্দ্রা স্টেশনের কাছে ভিড় জমান তাঁরা। সেখান থেকে তাঁদের হটাতে লাঠিচার্জ করে পুলিশ।

ঘটনাস্থলের ভিডিও ফুটেজে দেখা গিয়েছে, করোনা ভাইরাসের ছড়িয়ে পড়া সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কেন্দ্রের নিয়ম লঙ্ঘন করা হয়েছে। এদিন সকালেই ৩ মে পর্যন্ত লকডাউন বৃদ্ধির ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিন সপ্তাহের লকডাউনে ফলে, আয় হারিয়েছেন দৈনিক মজুরিতে কাজ করা পরিযায়ী শ্রমিকরা। পরিবহন ব্যবস্থা বন্ধ থাকার কারণে তাঁদের অনেকেই বাড়ি ফিরতে পারেননি। বিনামূল্যে খাবার, দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে সরকার, তারপরেও প্রতিদিন দুবেলা খাবার পাননি অনেকেই।

উল্লেখ্য, দেশে ইতিমধ্যেই করোনা ভাইরাসের সংক্রমণে ১০,০০০ এর গণ্ডি পেরিয়ে গেছে। মঙ্গলবার দুপুর ১২ টা পর্যন্ত দেশে অব্যাহত করোনা ভাইরাসের দাপটে মৃতের সংখ্যা ৩৫৮। আক্রান্ত ১০ হাজার ৫৪১ জন। সুস্থ হয়েছেন ১২০৫ জন। পরিস্থিতি সামাল দিতে এদিন সকালে জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে আগামী ৩ রা মে পর্যন্ত লকডাউন বাড়ানোর কথা ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।