টিডিএন বাংলা ডেস্ক: ২০০৭ সালে সমঝোতা এক্সপ্রেস বিস্ফোরণে ৬৮ জন মারা যান। এক পাকিস্তানি মহিলা শুক্রবার পাঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্টের কাছে স্বামী অসীমানন্দকে রেহাই দেওয়াকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে আপিল করেছেন। মামলায় অসীমানন্দ, লোকেশ শর্মা, কামাল চৌহান ও রাজিন্দর চৌধুরীকে গত মার্চ মাসে একটি বিশেষ এনআইএ এর আদালত মুক্তি দিয়েছিল।

রাহিলা ওয়াকিলের হয়ে শুক্রবার আপিল করেন তার আইনজীবী মমিন মালিক। বিস্ফোরণে হাফিজাবাদের বাসিন্দা রাহিলার বাবা মারা যান। বিস্ফোরণে রাহার বাবা মোহাম্মদ ওয়াকিল মারা যান। রাহিলা ইউপি’র একজন আত্মীয়ের মাধ্যমে আদালতে এই আবেদন দাখিল করেছেন। তবে টেকনিকি কারণে হাই কোর্টের রেজিস্ট্রেশন বিভাগ এখনো শুনানির জন্য তা অনুমোদন করেনি। প্রতিনিধিত্বকারী মমিন মালিক বলেন, “আমরা একটি আপীল দায়ের করেছি এবং আমরা শীঘ্রই এটি শুনানির আশা করছি।” তিনি বলেন, হাইকোর্টের সামনে আমার পক্ষ থেকে তার হয়ে আপীল দাখিল করেছি, যেখানে আমরা পঞ্চকুল এনআইএ আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে স্বামী অসীমানন্দ এবং তিনজনকে নির্দোষ সাব্যস্ত করার বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ করেছি।

উল্লেখ্য, ২০০৭ সালের ১৮ই ফেব্রুয়ারি দিল্লি থেকে পাকিস্তানের লাহোর পর্যন্ত যাত্রা করা সমঝোতা এক্সপ্রেসে বিস্ফোরণ ঘটে। হরিয়ানার পানিপথের কাছে এই বিস্ফোরণ হয়েছিল। এই ঘটনায় ৬৮ জন‌ মারা যায়, মৃতদের বেশিরভাগই পাকিস্তানের নাগরিক ছিল।