টিডিএন বাংলা ডেস্ক: অবশেষে প্রবল চাপে পড়ে ৪৯ বুদ্ধিজীবীর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা প্রত্যাহার করার নির্দেশ দিল মুজফ্‌ফরপুর পুলিশ।

উল্লেখ্য, জয় ‘শ্রীরাম’ ধ্বনিটি একটি প্ররোচনামূলক রণহুঙ্কারে পরিণত হয়েছে। যার ফলে যেখানে সেখানে মব লিঞ্চিং করা হচ্ছে দলিত, আদিবাসি ও সংখ্যালঘু মুসলিমদের। এই গুলো বন্ধ হোক। দেশের সর্বোচ্চ আধিকারিক হিসেবে আপনার উচিত রাম নামের এই বিকৃতি বন্ধ করা। এই বলে গত ২৪ জুলাই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে একটি খোলা চিঠি লেখেন দেশের মোট ৪৯ জন বুদ্ধিজীবী। এর ফলে তাঁদের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার মামলা রুজু করা হয়।

সেই ৪৯ জন বুদ্ধিজীবীর মামলার প্রতিবাদ জানিয়ে আরও ১৮৫ জন বিশিষ্ট ব্যক্তি চিঠি দেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে। মঙ্গলবার প্রতিবাদে মঙ্গলবার কংগ্রেস নেতা শশী থারুর উদ্বেগ প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে একটি চিঠি লিখেছেন। এমনকি বুধবার কেরলা থেকে সিপিএমের ছাত্র ও যুব সংগঠন এসএফআই এবং ডিওয়াইএফআই উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে এক লক্ষের বেশি প্রতিবাদ চিঠি পাঠায়। এছাড়াও সারাদেশ জুড়ে শুরু হয় তীব্র সমালোচনা। যার ফলে প্রবল চাপে পড়ে বুদ্ধিজীবীর বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা বন্ধ করার নির্দেশ দিল মুজফ্‌ফরপুর পুলিশ। বুধবার জেলার সিনিয়র পুলিশ সুপার (SSP) মনোজ কুমার সিনহা এই সংক্রান্ত নির্দেশিকা জারি করেছেন।

নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, এই মামলার পুলিশি তদন্তে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি। বুদ্ধিজীবীদের বিরুদ্ধে করা অভিযোগগুলি ভিত্তিহীন বলেও জেলার সিনিয়র পুলিশ সুপারের স্বাক্ষরিত নির্দেশিকায় উল্লেখ করা হয়েছে। যে কারণে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলাটি বন্ধ করার কথা বলা হয়েছে।