টিডিএন বাংলা ডেস্ক : গো-হত্যার গুজবে উত্তরপ্রদেশের বুলন্দশহর জেলা এখনও উত্তাল। অবরোধ-বিক্ষোভ-প্রতিবাদ, পুলিশকে লক্ষ্য করে পাথর-গুলি, পুলিশের পাল্টা গুলি, থানায় ভাঙচুর, আগুন ধরানোসহ নানা অরাজকতা চলছে সেখানে। বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে সংঘর্ষে এক পুলিশ কর্মকর্তাসহ দুইজন নিহত হয়েছেন। গুরুতর আহত হয়েছে আরও দুই পুলিশ সদস্য।


পুলিশ জানায়, সোমবার বুলন্দশহরের স্যানা মহকুমা এলাকায় মাহু গ্রামের বাইরে জঙ্গল লাগোয়া একটি মাঠে প্রায় ২৫টি গরুর মাংস পড়ে থাকতে দেখা যায় বলে গুজব রটে। গো-হত্যার প্রতিবাদে সকালে ওই এলাকায় বিক্ষোভ শুরু হয়। ট্র্যাক্টর ও ট্রলি ভরে ওই মাংস নিয়ে রাস্তা অবরোধ করে প্রতিবাদ জানায় এলাকার প্রায় ৪শ মানুষ। খবর পেয়ে অবরোধ সরাতে পুলিশ সেখানে গেলে বিক্ষোভকারীদের ছোড়া পাথরে গুরুতর আহত হন ইনস্পেক্টর সুবোধ কুমার সিংহ। পরে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর তিনি মারা যান। এ ছাড়া পুলিশের গুলিতে সুমিত নামে স্থানীয় এক বাসিন্দা নিহত হয়েছেন।

বুলন্দশহরের জেলাশাসক অনুজ কুমার ঝা জানান, বিক্ষোভকারীদের অবরোধ তুলতে অনুরোধ করায় কোনো কাজ হয়নি। বরং অবরোধকারীদের মধ্যে থেকে দুষ্কৃতীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে পাথর ছুড়তে থাকে। এমনকি এলাকার চিংরাবটি পুলিশ ফাঁড়িতে চড়াও হয় তারা। থানায় ভাঙচুর চালানো ছাড়াও একটি পুলিশ ভ্যানে আগুন লাগিয়ে দেয়া হয়। এমনকি পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলিও চলে।

এ সময় বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে ফাঁকা গুলি চালায় পুলিশ। গুলিতে স্থানীয় বাসিন্দা সুমিত গুরুতর আহত হন। তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন। অন্যদিকে বিক্ষোভকারীদের ছোড়া পাথরের আঘাতে গুরুতর আহত হন ইনস্পেক্টর সুবোধ কুমার সিংহ। আহত অবস্থায় মেরঠের এক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানে মারা যান তিনি। নিহত সুবোধ এক সময়ে গোরক্ষকদের হাতে দাদরির মহম্মদ আকলাখের খুনের ঘটনার তদন্তকারী অফিসার ছিলেন।