তাহের মজুমদার, টিডিএন বাংলা, আসাম : দেশের অখণ্ডতা ও সংহতির পক্ষে কথা বলায় আসামের বিশিষ্ট বুদ্ধিজীবি ডঃ হীরেন গোঁহাই, কৃষকমুক্তি সংগ্রাম সমিতি উপদেষ্টা অখিল গগৈ ও সাংবাদিক মনজিৎ মহন্তের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে আসামের লতাশিলা থানায় ভারতীয় দণ্ডাবিধির ১২০(বি)/১২১/১২৩ /১২৪(এ) ধারায় তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।

আর সরকারের ওই ভূমিকার কঠোর সমালোচনা করেছেন আসামের বিভিন্ন স্হানের সঙ্গে বরাক তথা আসামে বাঙালী জনসাধারণের শক্তিশালী সংগঠন নাগরিক অধিকার রক্ষা সমন্বয় কমিটি (সিআরপিসি) সহ বুদ্ধিজীবী সকল।

শুক্রবার রাতে আসামের শিলচরে এক সাংবাদিক সম্মেলন ডেকে সিআরপিসির সভাপতি তথা আসাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য ড. তপোধীর ভট্টাচার্য বলেন, দেশের অখণ্ডতা ও সংহতির পক্ষে কথা বলে আসামের বিশিষ্ট বুদ্ধিজীবি ডঃ হীরেন গোঁহাই কোনও অন্যায় করেননি। আসামের নাগরিক সমাজের “ধিক্কার দিবস” কর্মসূচিতে ভাষন প্রসঙ্গে ডঃ হীরেন গোঁহাই সরকারের চিন্তাধারায় ক্ষোভ প্রকাশ করে, প্রয়োজনে স্বাধীন আসামের দাবি উত্থাপনের কথা বলেছিলেন। তাঁর সুরে সুর মিলিয়ে কথা বলেন অখিল গগৈ ও মনজিৎ মহন্ত।

আর স্বাধীন আসামের কথা বলায় ঐ তিন জনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে আসাম পুলিশের পক্ষ থেকে মামলা করা হয়। এতেই আসাম তথা বরাকের বিভিন্ন সংগঠন ড. হীরেন গোঁহাই দের পক্ষে দাঁড়ায়। তপোধীর ভট্টাচার্য আরও বলেন, ড. হীরেন গোঁহাই একজন অসাম্প্রদায়িক ব্যাক্তিত্ব সহ মুক্ত চেতনার বিশ্বাসী। আমরা তাঁকে চিনি ও জানি। তাঁর বিরুদ্ধে যে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে মামলা করা হয়েছে সেটা মেনে নেওয়া যায়না।

একইভাবে এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে নাগরিক অধিকার রক্ষা সমন্বয় কমিটির (সিআরপিসি) সাধারণ সম্পাদক কিশোর ভট্টাচার্য় বলেন, হীরেন গোঁহাই এর মত একজন সম্মানীত ব্যক্তিত্বর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে সেটা মেনে নেওয়া যায় না এতে আমরা বিচলিত বোধ করছি। একইভাবে এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে আইনজীবী ইমাদ উদ্দিন বুলবুল, প্রসেনজিৎ বিশ্বাস, সুব্রত নাথ, শরীফুজ্জামান লস্কর প্রমুখ বক্তব্য রাখতে গিয়ে প্রত্যেক বক্তা হীরেন গোঁহাই এর বিরুদ্ধে যে মামলা হয়েছে তার তীব্র নিন্দা জানান।

পাশাপাশি ধর্মের নামে যে বিল আনা হয়েছে সেটা মেনে নেওয়া যায় না বলেও জানান তাঁরা। তারা জানান, সিআরপিসি চায় মানবাধিকারের ভিত্তিতে, আন্তর্জাতিক আইনের ভিত্তিতে যদি কেউ অন্যদেশ থেকে এই দেশে আসেন তাদের নাগরিকত্ব  প্রদান করা হোক। এভাবে ধর্মের নাম করে রাজ্যের শান্ত- সম্প্রীতির পরিবেশ নষ্ট না করার দাবি জানান নাগরিক অধিকার রক্ষা সমন্বয় কমিটি (সিআরপিসি) র নেতারা।

একইভাবে রাজ্যের মন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা যেভাবে সম্প্রতি তার এক বক্তব্যে বলেছিলেন, হিন্দু বাঙালীদের নাগরিকত্ব  না দিলে আসাম জিন্না বংশধরদের হাতে আবার চলে য়াবে। এই অসাম্প্রদায়িক  বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জানান নাগরিক অধিকার রক্ষা সমন্বয় কমিটি (সিআরপিসি) র নেতারা। শঙ্কর দেব ও আজান ফকিরের রাজ্য আসামে যুগযুগ ধরে হিন্দু – মুসলিম শান্তিতে বসবাস করছেন বলে জানান তারা।

হিমন্ত এভাবে মন্তব্য করে রাজ্যের  হিন্দু -মুসলিমের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করার প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন বলে মনে করেন সিআরপিসি নেতারা। যেদিও ডঃ হীরেন গোঁহাই,  কৃষকমুক্তি সংগ্রাম সমিতি উপদেষ্টা অখিল গগৈ ও  সাংবাদিক মনজিৎ মহন্তের  বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিয়োগে মামলা হয়েছে। তবে তারা শুক্রবার গুয়াহাটির উচ্চ আদালত থেকে আগামী ২২ জানুয়ারি  পর্যন্ত অন্তর্বর্তীকালীন জামিন পেয়েছেন। পুর্ণ  জামিন পেয়েছেন সাংবাদিক মনজিৎ মহন্ত।