টিডিএন বাংলা ডেস্কঃ ৭১ টি ভেড়ার বিনিময়ে স্ত্রীকে প্রেমিকের হাতে তুলে দিলেন স্বামী। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুরের একটি গ্রামে। আজব এই নিদান দিয়েছিলেন স্বয়ং পঞ্চায়েত প্রধান।

বিয়ে হয়েছে বহুদিন কিন্তু কোনও সন্তান ছিল না। ফলে সংসারে অশান্তি লেগেই থাকত। এই পরিস্থিতিতে গ্রামের এক যুবকের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন ওই গৃহবধূ। এই পযন্ত সবই ঠিকঠাকই চলছিল। তবে মূল ঘটনার সূত্রপাত গত ২২ জুলাই। ওই দিনই গৃহবধূ নিজের প্রেমিকের ঘর বাঁধার আশায় বরকে ছেড়ে পালায়। বিপত্তি বাধে প্রেমিক ও স্বামীর মুখোমুখি হতেই। পরিস্হিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছায় যে, মধ্যস্থতা করতে হয় পঞ্চায়েতকে। প্রেমিককে বেছে নিয়ে বলা হয়, পোষা ভেড়া নতুবা ওই মহিলা। যে কোনও একটা বাছতে হবে তাঁকে। প্রেমিক বেছে নেন মহিলাকে। অবশেষে প্রেমিক ৭১ টি পোষা ভেড়া ওই মহিলার স্বামীকে দিতে রাজি হয়ে যায়।

যদিও এখন থেকে শুরু হয় নতুন এক সমস্যা। পঞ্চায়েতের ওই সিদ্ধান্ত মানতে নারাজ প্রেমিকের বাবা। ১৪২ টি ভেড়ার মধ্যে ৭১ টি ভেড়া দেওয়ার বেজায় ক্ষুদ্ধ হন প্রৌঢ়। ওই ভেড়াগুলোকে ছেলের নয় বরং নিজের বলে দাবি করেন তিনি। ভেড়াগুলোকে ফেরত চান তিনি। খোরাবার থানায় ছেলের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগও দায়ের করেন। এমনকী ওই মহিলার স্বামীকেও চুরির অপবাদ দেন।

এত কিছুর পর ওই গৃহবধূর কী হল ? মহিলা কিন্ত নাছোড় নিজের জেদে। তিনি সাফ জানিয়েছেন, তিনি কোনও মতেই স্বামীর সঙ্গে ঘর করবেন না। ভবিষ্যতে প্রেমিকের সঙ্গেই থাকতে চান ওই গৃহবধূ থুড়ি প্রেমিকা। আপাতত পুলিশ চেষ্টা করছে বিষয়টি আলোচনার মাধ্যমে মীমাংসা করার। এমনটাই জানিয়েছেন, খোরাবারের এসএইচও অম্বিকা ভরদ্বাজ।