টিডিএন বাংলা ডেস্ক : শাহ ফয়জল, প্রথম কাশ্মীরি আইএএস টপার। আজ সবাই যাঁকে স্যালুট করছে। তিনি জম্মু ও কাশ্মীরে একটি যুব আইকনের মতো আবির্ভূত হয়েছেন। তিনি প্রথম কাশ্মীরি হিসাবে ভারতীয় সিভিল সার্ভিস পরীক্ষায় শীর্ষ স্থান দখল করেন। পোস্টিংয়ের অপেক্ষায় ছিলেন এই তরুণ আইএএস। কুপওয়ারার সোগাম লোলা এলাকার বাসিন্দা ফয়জল সম্প্রতি আমেরিকার হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করে ফিরেছেন।

কিন্তু এর মধ্যেই ইস্তফা দিলেন এই তরুণ আইএএস কর্তা। কারণ হিসাবে বলেছেন, “হিন্দুত্ববাদীদের চাপে দেশের ২০ কোটি মুসলিম কার্যত দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিকে পরিণত হয়েছেন। এর প্রতিবাদে সিভিল সার্ভিস থেকে ইস্তফা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।”

তিনি আরোও বলেন, “কাশ্মীরের সমস্যা সমাধানে কেন্দ্রীয় সরকার পুরোপুরি অনিচ্ছুক। সুরক্ষার নামে হিন্দুবাহিনীর দাপটে প্রান্তিক মুসলিমদের দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিক হিসেবে নামিয়ে আনা হয়েছে। উগ্র জাতীয়তাবাদের নামে ভারতের মূল ভূখণ্ডে বেড়ে চলছে অসহিষ্ণুতা।”

এ বিষয়ে সিনিয়র কংগ্রেস নেতা পি চিদাম্বরম মোদি সরকারকে নিশানা করেছেন। চিদাম্বরম বলেন, তাঁর এই পদক্ষেপের ফলে বিশ্ব তাদের যন্ত্রণা ও আক্রোশের দিকে মনোযোগ দেবে। প্রথম কাশ্মীরি আইএএস শীর্ষস্থানীয় ফয়জল সরকারকে দোষারোপ করেছেন। তিনি বলেন, “যদিও তা দুঃখজনক, তবে আমি আইএএস অফিসার (বর্তমানে পদত্যাগ) শাহ ফয়সালকে স্যালুট জানাচ্ছি। তাঁর বক্তব্যের প্রতিটি শব্দ সত্য এবং তা বিজেপি সরকারকে দোষারোপ করে।”