তিয়াষা গুপ্তা, টিডিএন বাংলা:  সম্প্রতি ঝাড়খণ্ডে যেভাবে গণপ্রহারের জেরে মুসলিম যুবকের মৃত্যু হয়েছে, তাতে তোলপাড় সারা দেশ। নিন্দায় সরব ওয়েলফেয়ার পার্টি অফ ইন্ডিয়া। সংগঠনের জাতীয় সভাপতি ডক্টর এসকিউআর ইলিয়াস দেশে যেভাবে হিংসা ও অসহিষ্ণতার ঘটনা বেড়ে চলেছে, তাতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

এক প্রেস বিবৃতিতে তিনি এই ঘটনাকে লজ্জাজনক বলে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলি লাগাতার যে বিদ্বেষ ছড়িয়ে যাচ্ছে তার শিকার ঝাড়খণ্ডের তবরেজ আনসারি। এরা দেশের বহুত্ববাদের শত্রু।

অনেক ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। তাতে দেখা যাচ্ছে, তবরেজ আনসারিকে কাঠের বেত দিয়ে মারা হচ্ছে। তাঁকে জয় শ্রী রাম, জয় হনুমান বলতে বাধ্য করা হচ্ছে। তিনি পুলিশের ভূমিকার কড়া নিন্দা করেন। চোর সন্দেহে তাঁকে মারা হয়। উন্মত্ত জনতা তাঁকে পুলিশের হাতে হস্তান্তরিত করেছিল। তবরেজ পুলিশের হেফাজতে ৪ দিন বেঁচে ছিলেন। অথচ তাঁর সেই সময় চিকিৎসার কোনও ব্যবস্থা করা হয়নি। ডক্টর ইলিয়াস দাবি করেছেন, রাজ্য সরকার এই ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত করুক। ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত সব পক্ষের শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তিনি। পুলিশের গাফিলতিরও এক্ষেত্রে বিচার হওয়া প্রয়োজন। কেন পুলিশ হেফাজতে তাঁর চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হল না?
প্রধানমন্ত্রীর সবকা সাথ সবকা বিকাশ- এটা কি নিছক একটা স্লোগান নাকি এর বাস্তব প্রয়োগ হবে? প্রশ্ন ডক্টর ইলিয়াসের। যদি এর বাস্তবায়ন হয়, তাহলে প্রধানমন্ত্রীর উচিত এই ঘটনার চরম নিন্দা করা এবং এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া। একইসঙ্গে তিনি উল্লেখ করেন, বিজেপি সরকারের আমলে যেভাবে মুসলিম নাগরিকদের সঙ্গে আচার-আচরণ চলছে, তার নিন্দা করছে গোটা বিশ্ব। এতে ভারতের ধর্মনিরপেক্ষ চরিত্র নষ্ট হচ্ছে।

ডক্টর ইলিয়াসের মতে, এটা কোনও বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। এটা পরিকল্পিতভাবে ঘটনা। মুসলিমদের চিহ্নিত করে, উন্মত্ত জনতা তাঁদের ওপর হামলা চালাচ্ছে। অপরাধীরা দোষ করেও পার পেয়ে যাচ্ছে। তাই এই ধরণের অপরাধ অবাধে বেড়ে চলেছে। ভবিষ্যতে গণপ্রহার বিরোধী আইন প্রণয়নেরও দাবি জানান তিনি।