টিডিএন বাংলা ডেস্ক: একটি মন্দিরের ভিতর থেকে এক পুরোহিত সহ তিনজনের রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার হল। মৃতদের মধ্যে দুজন মহিলা। তিনজনেরই বয়স ৭০-এর উর্ধ্বে। যখন উদ্ধার করা হয়, তাদের শরীর থেকে রক্ত তখনও ফিনকি দিয়ে বেরচ্ছিল। সোমবার অন্ধ্রপ্রদেশের অনন্তপুর জেলায় কোড়িটিকিতা গ্রামের ঘটনা। পুলিশের সন্দেহ, পুরোহিত সহ তিনজনকেই বলি দেওয়া হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, তিনটি দেহই উদ্ধার করা হয়েছে মন্দিরের ভিতর থেকে। তবে সেগুলি বিভিন্ন জায়গায় ছড়ানো ছিল। শিবলিঙ্গের গায়ে লেগেছিল চাপ চাপ রক্ত। তদন্তে জানা গিয়েছে, যে তিন জনের দেহ উদ্ধার করা হয়েছে, তাদের মধ্যে অন্যতম মন্দিরের ৭০ বছর বয়সী পুরোহিত শিবরামি রেড্ডি, তার দিদি কে কমলাম্মা (৭৫) এবং সত্য লক্ষমাম্মা (৭০) নামে আরও একজন মহিলা। তিনজনেরই গলার নলি কেটে দেওয়া হয়েছিল। লক্ষ্যমাম্মা তার কোন এক মনস্কামনা পূরণের জন্য বেঙ্গালুরু থেকে কোড়িটিতায় গিয়েছিলেন মন্দিরে একটি রাত কাটাতে। মন্দিরের ভিতরে এই তিনটি দেহ পড়ে থাকতে দেখে গ্রামবাসীরাই খবর দেন পুলিশে।

কেন এই হত্যাকান্ড, মঙ্গলবার পর্যন্ত তার কোনো সূত্র বের করতে পারেনি পুলিশ। তবে গ্রামবাসীদের সন্দেহ, মন্দিরে লুকিয়ে আছে গুপ্তধন। এই গুপ্তধনের সন্ধানেই সম্ভবত কেউ এই নরহত্যা চালিয়েছে। পঞ্চদশ শতকের এই মন্দির সংস্কারের কাজ বর্তমানে চলছে বলে জানিয়েছেন, স্থানীয় প্রশাসনিক কর্তা টি মধু। গ্রামবাসীরা জানিয়েছে, রবিবার মধ্যরাতে কিছু অজ্ঞাতপরিচয় লোক মন্দিরে এসে এই জঘন্য কান্ডটি সংঘটিত করেছে। যুগশঙ্খ