টিডিএন বাংলা ডেস্ক: বাড়ানো হল ভোটারের তথ্য যাচাইয়ের সময়সীমা। এমনকি কর্মসূচির শেষে প্রত্যেককে দেওয়া হতে পারে ১০ সংখ্যার নতুন রঙিন আইডি কার্ড। তথ্য যাচাইয়ের সময়সীমা ১৫ অক্টোবরের পরিবর্তে বাড়িয়ে তা ১৮ নভেম্বর ২০১৯ পর্যন্ত করেছে ভারতীয় নির্বাচন কমিশন। শনিবার দেশের সব রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী অধিকারীকদের উদ্দেশ্যে চিঠি ও মেইল-এর মাধ্যমে এক নোটিফিকেশন পাঠিয়েছে ভারতীয় নির্বাচন কমিশন। যেখানে বলা হয়েছে, নির্বাচক তথ্য যাচাই কর্মসূচি বা ইভিপি-র সময়সীমা ১৫ অক্টোবরের পরিবর্তে আগামী ১৮ নভেম্বর পর্যন্ত করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ভোটার কার্ডের তথ্য ১০০ শতাংশ সঠিক করার উদ্দেশ্যে এক বিশেষ কর্মসূচি গ্রহণ করেছিল ভারতীয় নির্বাচন কমিশন। সেই প্রক্রিয়া শুরু হয়েছিল ১ সেপ্টেম্বর থেকে। যা আগামী ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত চালু থাকবে বলে জানিয়েছিল নির্বাচন কমিশন। পুরোপুরি অনলাইন ও অ্যাপসের মাধ্যমে যাচাই কর্মসূচির কাজ চলছিল। অনলাইন ও অ্যাপস দুটোর কোনওটাই সঠিকভাবে কাজ করছিল না বলে অভিযোগ ওঠে বিভিন্ন মহল থেকে। বর্তমানে তার কোনও পরিবর্তন হয়নি। এছাড়া দেশের প্রায় ৮২ শতাংশ নির্বাচক এই কর্মসূচিতে অংশ নেননি। সব থেকে বেশি সাড়া মিলেছে উত্তরপ্রদেশে, পরেই রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ। নির্বাচকদের যথাযথ সাড়া না মেলায় তথ্য যাচাই কর্মসূচি বা ইভিপির সময়সীমা বাড়ানো হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

কমিশন আরও নির্দেশ দিয়েছে যে, ভোটার কার্ডগুলি মানসম্মত করা হবে। সে জন্য বর্তমান এপিক নম্বর রূপান্তর করা হবে ১০ সংখ্যার বর্ণানুক্রমিক ইউনিক নম্বরে। পাশাপাশি পুরনো এপিক নম্বরও ওই কার্ড ছাপা থাকবে। কার্ডটি হতে পারে রঙিনও। জীবনযাপনের ক্ষেত্রে নির্বাচক এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় গেলেও নতুন এই কার্ডটি চালিয়ে যেতে পারবেন। যদিও বিষয়টি পুরোপুরি নির্ভর করছে রাজ্য পর্যায়ে তহবিল ছাড়ার উপর।