টিডিএন বাংলা ডেস্ক : মঙ্গলবার পাক অধিকৃত কাশ্মীরের জৈশ ঘাঁটিতে ভারতীয় বায়ুসেনার বিমানহানার পর ভারত ও পাকিস্তান উভয় দেশকেই ‘সংযত’ হওয়ার অনুরোধ জানালো চীন, অষ্ট্রেলিয়া এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন। মঙ্গলবার চীনের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র লু কাঙ ভারতীয় বায়ুসেনার বিমানহানা নিয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে বলেন, আন্তর্জাতিক সহযোগিতার মাধ্যমে সন্ত্রাসবাদের মোকাবিলা করুক ভারত। তিনি বলেন, ভারত ও পাকিস্তান দুটি দেশই দক্ষিণ এশিয়ার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ দেশ। এই দুই দেশের মধ্যে সুসম্পর্ক ও সহযোগিতা যেমন পারস্পরিক স্বার্থ পুষ্ট করবে, তেমনি দক্ষিণ এশিয়ায় শান্তি ও সুস্থিতির জন্যও এটা গুরুত্বপূর্ণ। আমরা আশা করি, দুই দেশই সংযত থাকবে এবং দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক উন্নত করার মাধ্যমে নিজেদের সমস্যার সমাধান করবে।  প্রসঙ্গত, বুধবারই চীনের উজেন শহরে উড়ে যাচ্ছেন ভারতের বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। সেখানে ভারত, রাশিয়া ও চীন এই তিন দেশের বিদেশমন্ত্রীদের মধ্যে বৈঠক হবে। সেখানে ভারত-পাকিস্তান সম্পর্ক ও সন্ত্রাসবাদ দমনের বিষয়টি আলোচনার মধ্যে উঠে আসতে পারে।  এদিকে, অষ্ট্রেলিয়ার বিদেশমন্ত্রী ম্যারিশ পেইন ভারত ও পাকিস্তান উভয়দেশের কাছেই সংযত হওয়ার অনুরোধ জানিয়ে বলেছেন, কোনোরকম পরবর্তী পদক্ষেপই এই অঞ্চলের শান্তি ও নিরাপত্তার পক্ষে বিপজ্জনক হবে। একইসঙ্গে, তিনি বলেন,  পাকিস্তানের নিজের এলাকায় জৈশ-ই-মহম্মদ-সহ সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠীগুলির বিরুদ্ধে জরুরি পদক্ষেপ প্রয়োজন। নিজের এলাকায় সন্ত্রাসবাদীদের ঘাঁটি চালানোর কাজে অনুমতি দেওয়া উচিত নয়। ইউরোপীয় ইউনিয়নের পক্ষেও এক বিবৃতিতে ভারত ও পাকিস্তানকে সর্বোচ্চ পরিমাণ সংযত থাকার অনুরোধ জানানো হয়েছে।