টিডিএন বাংলা ডেস্ক: লোকসভা ভোটের ফলাফল সবে মাত্র প্রকাশিত হয়েছে। এখনও সরকার গঠন হয়নি। একক সংখ্যাগরিষ্ঠতায় বিজেপি সরকার গঠন করতে চলেছে। ৩০শে মে দ্বিতীয় বারের জন্য প্রধানমন্ত্রী পদে আবার শপথ গ্ৰহণ করবেন নরেন্দ্র মোদি।

কেন্দ্রে সরকার গঠনের আগেই আবার শুরু হয়েছে হিন্দুত্ববাদীদের চরম তান্ডব। মাত্র দুদিন আগে মধ্যপ্রদেশের সিওনিতে একটি অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে। গোমাংস নিয়ে যাওয়া হচ্ছে দাবি করে এক মুসলমান দম্পতিসহ চারজনকে বেধড়ক মারধর করে হিন্দুত্ববাদীরা।

সিওনির ঠিক দুদিন পরেই আবার গুরুগাঁওয়ে হিন্দুত্ববাদীদের হাতে নিগ্ৰীত মুসলিম যুবক। মহম্মদ আলম বরকত নামের ওই যুবকের দাবি, মসজিদ থেকে প্রার্থনা করে আসার পথে রাস্তায় চারজন লোক তাকে ঘিরে ধরে জোর করে জয়শ্রীরাম বলতে বলে। কিন্তু বরকত তা অস্বীকার করে তখন তার পাঞ্জাবী ছিঁড়ে দেয়। এবং বারবার জয় শ্রীরাম বলতে চাপ দিতে থাকে।

সংসদের সেন্ট্রাল হলে দ্বিতীয় বারের জন‍্য নরেন্দ্র মোদি নেতা নির্বাচিত হওয়ার পর শনিবার তিনি বলেন সমাজের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষের বিশ্বাস অর্জন করতে হবে। এতদিন যেভাবে ‘তাঁদের ভোট ব্যাঙ্কের স্বার্থে’ ব্যবহার করা হত তা পরিবর্তন করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী যখন একথা বললেন তার একদিনের মধ্যেই বিজেপি শাসিত হরিয়ানার গুরগাঁওতে একটি অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটল।

এই ঘটনার পর এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা। পুলিশের তরফ থেকে মামলা দায়ের করা হয়েছে। আশপাশে থাকা সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহের কাজ শুরু করেছে পুলিশ। কিন্তু এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি। এবারের নির্বাচনে হরিয়ানা বিরোধীশূন্য হয়েছে ১০ টি আসনেই জিতেছেন বিজেপির প্রার্থীরা।

এখন গুরগাঁওতে থাকলেও বরকত আদতে বিহারের বেগুসরাইয়ের বাসিন্দা। এবারের ভোট প্রক্রিয়ার একেবারে শুরু থেকেই সকলের নজর ছিল বেগুসরাইয়ের দিকে। জহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র সভাপতি কানহাইয়া কুমার কে ৪ লাখ ভোটে পরাজিত করে জেতেন বিজেপির প্রার্থী গিরিরাজ সিং।