টিডিএন বাংলা ডেস্ক : ত্রিপুরায় পুলিশের গুলিতে সুদীপ্ত দত্ত ভৌমিক নামের একজন সাংবাদিক নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার আগরতলা থেকে ২০ কিলোমিটার দূরে সেকেন্ড ত্রিপুরা স্টেট রাইফেলসের দফতরে এ ঘটনা ঘটে।
জানা গেছে, সংবাদ সংগ্রহের জন্য ত্রিপুরা স্টেট রাইফেলসের দফতরে গিয়ে পুলিশের এক কর্মকর্তার সঙ্গে বাগবিতণ্ডায় জড়ান সুদীপ্ত। বাগবিতণ্ডার একপর্যায়ে তাকে গুলি করেন পুলিশের ওই কর্মকর্তা।
তাৎক্ষণিকভাবে সায়ান্দান পত্রিকার ওই প্রতিনিধিকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনার পর থেকেই উত্তপ্ত ত্রিপুরা। ইতোমধ্যে বিক্ষোভ করেছেন সেখানকার স্থানীয় সাংবাদিকরা। অভিযুক্ত কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
ত্রিপুরার বিধানসভা নির্বাচনকে ঘিরে বেশ সরগরম উত্তর পূর্বের রাজ্যের রাজনীতি। এরই মধ্যে সাংবাদিক হত্যার ঘটনা আগুনে ঘি ঢেলেছে। জানা গেছে, আগে থেকেই ত্রিপুরা স্টেট রাইফেলসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার সঙ্গে অ্যাপয়েনমেন্ট নেয়া ছিল সুদীপ্তের।
কিন্তু সেখানে পৌঁছেই অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তার সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন সুদীপ্ত। একপর্যায়ে নিজের বন্দুক থেকে সুদীপ্তকে গুলি করেন অভিযুক্ত পুলিশকর্মী।
ত্রিপুরার জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত এবং দোষীর শাস্তি দাবি করা হয়েছে। তবে এ ব্যাপারে রাজ্যের কোনো মন্ত্রী কিংবা পুলিশের কোনো ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা মুখ খোলেননি।
নিহত সাংবাদিকের মরদেহ আগরতলায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। দু’মাস আগে আগরতলায় শাসক দল সিপিএম এবং আইপিএফটি সদস্যদের সংঘর্ষের খবর সংগ্রহ করতে গিয়ে একদল দুষ্কৃতির আক্রমণে প্রাণ হারিয়েছেন দিন-রাত চ্যানেলের সাংবাদিক শান্তনু ভৌমিক।