তাহের মজুমদার, টিডিএন বাংলা, আসাম: বুধবার আসামের মানকাছার জেলায় এক সাংবাদিক সম্মেলনে এআইইউডি এফ দলের সুপ্রিমো বদরুদ্দিন আজমল একটি বেসরকারি নিউজ চ্যানেল এর সাংবাদিক কে প্রাণে মারার হুমকি দিয়ে নতুন এক বিতর্কের সূচনা করেন। কর্তব্যরত সাংবাদিককে অপদস্ত করার জন্য ও হুমকি দেওয়ার পর আসামে নিন্দা ও ধিক্কার জানাচ্ছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা কর্মীরা।

ধুবড়ির সাংসদ বদরুদ্দিন আজমল কে গ্রেফতারের দাবীতে সোচ্ছার হয়েছেন আসামের বরাক – ব্রম্মপুত্র উপত্যকার সাংবাদিকরা। বৃহস্পতিবার সকালে গুয়াহাটির দিসপুর প্রেস ক্লাবের সামনে গুয়াহাটির ছাপা ও বিদ্যুতিন মাধ্যমের সাংবাদিকরা মুখে কালো কাপড় বেঁধে সাংসদ বদরুদ্দিন আজমলের কর্মকাণ্ডের তীব্র নিন্দা ও ধিক্কার জানান। একই ভাবে এদিন গুয়াহাটি গণেশ গুড়িতে সাংবাদিকরা বদরুদ্দিন কাণ্ডের নিন্দা জানান।

অন্যদিকে আপকুর তিনসুকিয়া জেলা সমিতি এক প্রতিবাদী কর্মসূচি আয়োজন করে। এদিন ডুমডুমা রাজস্ব চক্র বিষয়ার কার্য়ালয়ের সামনে আপকুর সদস্যরা মুখে কালা কাপড় বেঁধে মৌন প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করে ডুমডুমা রাজস্ব চক্র বিষয়ার মাধ্যমে বদরুদ্দিন আজমলকে গ্রেপ্তারের দাবিতে তিনসুকিয়া জেলা উপায়ুক্তের কাছে একখানা স্মারকপএ প্রদান করা হয়।এদিকে এদিন সাংবাদিকের প্রতি বদরুদ্দিন আজমলের গালি গালাজের প্রতিবাদে ডিব্রুগড়ে হিন্দু ক্রান্তি দল অাসাম ও রামসেনা আসাম সাংসদ বদরুদ্দিন আজমলের বিরুদ্ধে এক প্রতিবাদ কর্মসূচি গ্রহন করে। এদিন সংঘটনের কর্মীরা আজমলের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরমনের শ্লোগান দিয়ে এক প্রতিবাদ কর্মসূচি গ্রহন করে সাংসদ আজমলের কুশপুত্তলিকা দাহ করে। এদিকে এদিন বরাক উপত্যকার শিলচরের সাংবাদিকরা বৃহস্পতিবার শিলচরে এক প্রতিবাদী কর্মসূচি গ্রহন করেন। এদিন শিলচরের সাংবাদিকরা শহরে এক প্রতিবাদী মিছিল করে। এদিকে যাকে নিয়ে আসাম রাজ্য উত্তাল হয়ে উঠেছে সেই সাংসদ বদরুদ্দিন আজমল আজ নিজে রাজ্যের বিভিন্ন নিউজ চ্যানেলে এক টুইট করে গত বুধবারের ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করে উত্তপ্ত করেছেন। সাংসদ বদরুদ্দিন আজমল তার টুইটে লেখেছেন গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভ সংবাদ মাধ্যম ও সাংবাদিক, সকলকে আমি আগে থেকেই শ্রদ্ধা করি ও আন্তরিকতার সঙ্গে দেখি। সেটা সকলের জানা। মানকাছাড়ের ঘটনাটি অনিচ্ছাকৃত আকস্মিক হওয়া একটি ঘটনা তার জন্য আমি দুঃখিত ও মর্মাহত।