টিডিএন বাংলা ডেস্কলোকসভার অধিবেশনের প্রথম দিনেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেছিলেন, বিরোধীদের প্রতিটি কথা গুরুত্বপূর্ণ। বিরোধীদের সংখ্যাতত্ত্ব নিয়ে ভাবার দরকার নেই। কিন্তু তিনি বোধহয় ভাবতে পারেননি সংসদে অধিবেশন শুরু হতেই প্রজ্ঞা সিং ঠাকুরের নাম বিভ্রাটের জেরে কেরলের সাংসদ প্রটেম স্পিকারকে বারবার রুল বুক দেখতে বাধ্য করবেন।

প্রজ্ঞা সিং ঠাকুর তাঁর গুরু স্বামী পূর্ণ চেতনানন্দ অবধেশানন্দ গিরির নাম তাঁর নামের আগে ব্যবহার করতে চান। এরপর সাংসদ রাজামোহন উন্নিথান, হিবি ইডেন, টিএন প্রতাপান, ডিন কুরিয়াকোশ, বেনি বেহান এবং রিভলিউশনারি সোশ্যালিস্ট পার্টির সাংসদরা হট্টগোল শুরু করেন। এরপরে টিএন প্রতাপান প্রজ্ঞা সিং ঠাকুর তাঁর সাংসদ সার্টিফিকেটে কী নাম ব্যবহার করেছিলেন, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। এরপর প্রটেম স্পিকার লোকসভার সেক্রাটারি জেনারেলকে সার্টিফিকেটে কী নাম আছে, তা জানতে চান। এরপর প্রটেম স্পিকার বলেন, সার্টিফিকেটে যে নাম আছে, তিনি শুধু সেই নাম ব্যবহার করতে পারবেন। মালেগাঁও বিস্ফোরণে অভিযুক্ত প্রজ্ঞা সংস্কৃতে শপথ নেন। শপথ শেষে ভারত মাতা কী জয় স্লোগান দেন। সেই শুনে আরও কয়েকজন সাংসদ একই ধুয়ো তোলেন। এরপর সাংসদরা রুল বুকের কথা উল্লেখ করেন। সংসদ স্লোগান দেওয়ার জায়গা নয়। এটা কোনও রাস্তা নয় যে কেউ নিজের মতো স্লোগান দেবেন। এরপর প্রটেন স্পিকার রুল বুক দেখে শপথ গ্রহণের সময় স্লোগান দেওয়া যাবে না বলে নির্দেশ দেন।