টিডিএন বাংলা ডেস্ক: হিমন্তবিশ্ব শর্মা রাজ্যের মূখ্যমন্ত্রী পদে বসানোর জন্য অত্যন্ত লালায়িত। মূখ্যমন্ত্রী হওয়ার জন্য প্রায়ই আমাকে নিয়ে আবোলতাবোল বক্তব্য রেখে জনপ্রিয়তা অর্জনের ব্যার্থ প্রচেষ্টা চালিয়ে যান। ৪০ লক্ষ বাঙালি মুসলিমদের বাংলাদেশী বলে বাঙালি হিন্দুর অভিভাবক সেজে মূখ্যমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখেন বর্তমান বিজেপি নেতা হিমন্তবিশ্ব শর্মা। বাংলাদেশের বাঙালি হিন্দু আমদানি করে মূখ্যমন্ত্রী হওয়ার ঝুঁকি নেওয়ার দরকার নেই। জার্সি পরিবর্তন করে বেরিয়ে আসলে আমরাই হিমন্তবিশ্ব শর্মাকে মূখ্যমন্ত্রী পদে বসিয়ে দেব। এই কথাগুলো বলেন এআইইউডিএফ সুপ্রিমো বদরুদ্দিন আজমল। বুধবার সকালে লক্ষ্মীপুর পশ্চিম জেলা পরিষদ কেন্দ্রের উজান তারাপুরে এক নির্বাচনী জনসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে উল্লেখিত বক্তব্য রাখতে গিয়ে উল্লিখিত বক্তব্য রাখেন।

তিনি ভাষণের শুরুতেই বিজেপি দল এবং মন্ত্রী হিমন্তকে নিশানা করেন। বলেন, মূখ্যমন্ত্রী পদের জন্য লালায়িত হিমন্ত নিজের স্বার্থসিদ্ধির জন্য উগ্র রাজনীতির আশ্রয় নিয়েছেন। হিমন্ত সাম্প্রদায়িক খোলোস ছেড়ে বেরিয়ে আসলে আমরাই তাকে মূখ্যমন্ত্রী বানিয়ে দেব বলে উল্লেখ করেন তিনি। বদরুদ্দিন বলেন, আমার দলে যোগ দিতে হবে না, তিনি আগের দল কংগ্রেসে ফিরে এলেও হবে। আমরা সবরকম প্রয়াস নিয়ে হিমন্তবিশ্ব শর্মার মূখ্যমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন পূরণ করে দেব। হিমন্ত যে দলে আছেন সেই বিজেপি দল দেশ, জাতি, সম্প্রদায় ও মা বোনদের শত্রু। সুস্থ সমাজের শত্রু বিজেপি দলকে এবারের গ্রাম পঞ্চায়েত নির্বাচনে ব্যালটের মাধ্যমে উপযুক্ত জবাব দিতে আবেদন রাখেন মওলানা বদরুদ্দিন আজমল।

পশ্চিম লক্ষ্মীপুর জেলা পরিষদ আসনে এআইইউডিএফ পার্থী মামন হোসেন লস্করকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করার আহ্বান আবেদন রাখেন তিনি। মামনকে জেলা পরিষদ সদস্য নির্বাচিত করলে পশ্চিম লক্ষ্মীপুর জেলা পরিষদ এলাকায় বাড়তি উন্নয়ন হবে বলে জোরের সঙ্গে বলেন তিনি।

আজমল ভোট ভিক্ষা ছাড়াও এনআরসি নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন নাগরিকত্ব বজায় থাকলে জীবনে বারবার ভোট পাবেন। নাগরিকত্ব হারালে ভোটাধিকার হারাবেন।