টিডিএন বাংলা ডেস্ক: দাবি- কংগ্রেসের মহামিলাওয়াত রিমোট সরকার যখন ক্ষমতায় ছিল, তখন বেঙ্গালুরুতে বিস্ফোরণ হয়নি? সেই সময় দেশ সন্ত্রাসের আতঙ্কে ভোগেনি? চৌকিদারের চৌকিদারিতে গত ৫ বছরে সেভাবে কোনো বড় বিস্ফোরণ হয়েছে? এটা সম্ভব হয়েছে, আপনার একটা ভোটের জন্য।
১৩, এপ্রিল, ২০১৯ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বেঙ্গালুরুর জনসভায় এই দাবি করেন। এর জবাব দিতে দেরি করেননি কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। তিনি ট্যুইট বার্তায় বলেন, পুলওয়ামা, পাঠানকোট, উরি, গাড়চিরোলি এবং ২০১৪ সাল থেকে ৯৪২ টি অন্যান্য বড় বিস্ফোরণ হয়েছে ভারতে। প্রধানমন্ত্রীর কান খোলা রেখে তা শোনা উচিত। মোদী বলেছিলেন, ২০১৪ সাল থেকে দেশে কোনো বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়নি। এর উত্তরে রাহুল পরের পর বিস্ফোরণের কথা উল্লেখ করেন।
বাস্তব –
২০১৪ সালের ডিসেম্বর – সবে ৭ মাস হয়েছে মোদী ক্ষমতায় এসেছেন। বেঙ্গালুরুর চার্চ স্ট্রিটে বোমা বিস্ফোরণ। নিহত ১, আহত ২।
এরপরে দেখা যাক পরের পর সন্ত্রাসবাদী হামলা ও বিস্ফোরণ
২০১৯ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি, পুলওয়ামায় গাড়ি বোমা বিস্ফোরণে প্রাণ হারান ৪০ আধা সেনা।
– ২০১৮ সালের ১৩ মার্চ, ছত্তিশগড়ের সুকমায় আইইডি বিস্ফোরণে ৯ সিআরপিএফ জওয়ান মারা যান।
– ২০১৭ সালের ২৪ এপ্রিল, সুকমায় ২৫ জওয়ান মারা যান।
– ২০১৬ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর জম্মু কাশ্মীরের উরির সেনা বেসে সন্ত্রাসবাদী হামলায় ১৭ জওয়ান প্রাণ হারান।
– ২০১৬ সালের ৩ অক্টোবর, বারামুলায় সন্ত্রাসবাদী হামলায় ১ বিএসএফ জওয়ান মারা যান।
– ২০১৬ সালের ২৯ নভেম্বর নাগরোটায় সেনা বেসে জঙ্গি হানায় ৭ জওয়ান মারা যান।
– ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে পাঠানকোটে সন্ত্রাসবাদী হামলায় ৫ জওয়ান মারা যান।
– ২০১৪ সালের ৫ ডিসেম্বর সেনা ক্যাম্পে জঙ্গি হামলায় ১১ নিরাপত্তারক্ষী মারা যান।
সাউথ এশিয়া টেররিজম পোর্টালের ডেটা অনুযায়ী ২০১৪ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ২০১৯ সালের ১১ এপ্রিল পর্যন্ত ৯৪২ টি বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে ভারতে। এর ফলে প্রাণ হারিয়েছেন ৪৫১ জন, আহত ১৫৮৯ জন।
২০১৭ সালের ৭ মার্চ ভোপালে উজ্জইন প্যাসেঞ্জার ট্রেনে বিস্ফোরণে ১১ জন মারা যান। ২৯ মার্চ সরকার সংসদে এই তথ্য দেয়। ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি আইএস-এর সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ৪ ব্যক্তির বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করে।
২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯-এ ফ্যাক্ট চেকারের রিপোর্ট অনুযায়ী ২০১৮ সালে ভারতে ১৭৪ টি আইইডি বিস্ফোরণ হয়েছে। যাতে প্রাণ গেছে ১০৮ জনের। ২০১৭ সালে ২৪৪ টি বিস্ফোরণে প্রাণ গেছে ৬১ জনের।
ন্যাশনাল সিকুরিটি গার্ড ও ন্যাশনাল বোম্ব ডেটা সেন্টারের রিপোর্ট অনুযায়ী ২০১৬ সালে সারা ভারতে ৪০৬ টি বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে ৩৩৭ আইইডি ব্লাস্ট ও ৬৯ টি এক্সপ্লোসিভ অর্ডন্যান্স। ২০১৬ সালের এনবিডিসি ডেটা অনুযায়ী, আইইডি বিস্ফোরণে মারা গেছেন ১১২ জন আর আহত ৪৭৯ জন। এক্সপ্লোসিভ অর্ডন্যান্স ব্লাস্টে মারা গেছেন ৬ জন, আহত ২৬ জন।
লোকসভার এক জবাবী ভাষণে বলা হয়, এনবিডিসি ডেটা সব বড় ধরণের ব্লাস্টের তথ্য উল্লেখ করে। এমনকী যেগুলি সন্ত্রাসবাদী হামলা নয়, সেগুলোও উল্লেখ করে।

এনবিডিসি থেকে ডেটা সংগ্রহ করে ২০১৮ সালের ১২ জুলাই ইকনমিক টাইমস একটি রিপোর্ট প্রকাশ করে, তাতে উল্লেখ করা হয়, ২০১৫ সালে ২৬৮ টি আইইডি ব্লাস্ট হয়েছে। ২০১৪ সালের ১৯০ টি।