টিডিএন বাংলা ডেস্ক : অর্থের অভাবে সন্তানদের স্কুলের ফি দিতে পারছে মা-বাবা । ফি-এর অভাবে স্কুলে থেকেও বের করে দেওয়া হয় তাদের সন্তানদের। তাই শেষ পর্যন্ত ছেলেমেয়ের পড়াশোনার খরচ যোগাতে নিজের কিডনি বিক্রির সিদ্ধান্ত নিল মা। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর প্রদেশে। যেখানে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের রাজ্যে সমাজ সংস্কার চলছে দেশ জুড়ে। সেখানে এমন একটি ঘটনায় অস্বস্তিতে পড়েছে যোগীর সরকার।
উত্তরপ্রদেশের রোহতা অঞ্চলের বাসিন্দা আরতি শর্মা সম্প্রতি স্যোশাল সাইটে একটি পোস্ট করেছেন। যেখানে তিনি নিজের কিডনি বিক্রি করার আবেদন জানিয়েছন, সন্তানদের স্কুলের খরচ যোগানোর জন্য। দেশের যেকোন প্রান্তে কিডনি দিতে প্রস্তুত এই মা। তার তিন ছেলে ও এক মেয়ে সিবিএসই স্কুলে পড়াশোনা করে । প্রথমদিকে সবকিছু ঠিকঠাকই চলছিল। কিন্তু নোট বাতিলের প্রভাবে তার স্বামীর ব্যবসা লোকসানের মুখে পরে। এমন অবস্থায় স্কুলের মাইনে দিতে না পারলে তার ছেলেমেয়েদের স্কুল থেকে বার করে দেয় স্কুল কর্তৃপক্ষ। সেই সময় তার দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়নি কেউ। এমনকী সাহায্যের আসায় উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের সঙ্গেও দেখা করেন আরতি। সেখান থেকে আশ্বাস মিললেও এখনও কোন সাহায্য পাননি তিনি। তবুও হার মানে নি এই মা। আরতি জানিয়েছন, ‘কিডনি বেঁচেই পড়াবো আর ওদের শেখাব জীবনের মানে কী।’