টিডিএন বাংলা ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি পাকিস্তানের জাতীয় দিবস উপলক্ষে ইমরান খানকে কি সত্যি সুভেচ্ছা বার্তা জানিয়েছেন? পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান টুইট করে জানান যে, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নাকি তাঁকে পাকিস্তানের জাতীয় দিবস উপলক্ষ্যে শুভেচ্ছা বার্তা পাঠিয়েছেন। আর এই নিয়ে শোরগোল শুরু হয়েছে বিরোধীদের মধ্যে।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামা হামলার পর থেকেই ভারত-পাকিস্তান দুই দেশের সম্পর্কের আরও অবনতি হয়েছে। যতক্ষণ পাকিস্তান সন্ত্রাসবাদকে প্রশ্রয় দিচ্ছে, ততক্ষণ তাঁদের সঙ্গে কোনও আলোচনা নয়। এমনটাই বক্তব্য ছিল কেন্দ্রীয় সরকারের। এমনকি জাতীয় দিবসে নয়াদিল্লিকে না জানিয়ে বিচ্ছিন্নতাবাদী হুরিয়ত নেতাদের আমন্ত্রণ করার জন্য অনুষ্ঠানটি বয়কট করেছে ভারত সরকার।

কিন্তু এই অবস্থাতে ইমরান খানের দিকে সৌজন্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন খোদ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীই!‌ পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান টুইট করে জানিয়েছেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নাকি তাঁকে পাকিস্তানের জাতীয় দিবস উপলক্ষ্যে শুভেচ্ছা বার্তা পাঠিয়েছ

আর এরপরই আসরে নেমেছে কংগ্রেস। ইতিমধ্যে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছে, পাক প্রধানমন্ত্রী যে টুইট করেছে, সেটি সত্যি কিনা!‌ অর্থাত্‍ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কী পাক প্রধানমন্ত্রী ‌ইমরান খানকে সেদেশের জাতীয় দিবস উপলক্ষ্যে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন?‌

টুইটে প্রধানমন্ত্রী দপ্তরকে উল্লেখ করে কংগ্রেসের মুখপাত্র প্রিয়াঙ্কা চতুর্বেদী জানতে চেয়েছেন, ‘‌ইমরান খানের টুইটের সত্যতা কতখানি?‌ যেখানে ভারত সরকার পাকিস্তানের জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠান বয়কট করেছে, সেখানে মোদি কী সত্যিই ইমরান খানকে শুভেচ্ছাবার্তা পাঠিয়েছেন?‌ গোটা দেশ সেটা জানতে চায়।’‌

এদিকে ইমরান টুইট করে জানান, ‘‌মোদি তাঁকে জাতীয় দিবসের জন্য শুভেচ্ছা জানিয়ে লিখেছেন, জাতীয় দিবসে পাকিস্তানের নাগরিকদের আমার শুভেচ্ছা। সময় এসেছে উপমহাদেশের নাগরিকদের একসঙ্গে হাত ধরে গণতান্ত্রিকভাবে, শান্তিপূর্ণভাবে উন্নতির পথে এগোনোর। যে পথে সন্ত্রাস ও হিংসা থাকবে না।’‌ এরপর মোদির এই বার্তাকে আমন্ত্রণ জানিয়ে আরও একটি টুইট করেন ইমরান। লেখেন, ‘‌সময় এসেছে ভারতের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে সমস্ত সমস্যা সমাধান করার। দুই দেশকে এগিয়ে এসে নতুন সম্পর্ক স্থাপন করতে হবে শান্তি ও উন্নতির মধ্য দিয়ে।’‌