টিডিএন বাংলা ডেস্কঃ সোমবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে বৈঠক করার ঘোষণা দেওয়ার কয়েক ঘণ্টা পরেই ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করল উত্তর কোরিয়া। দক্ষিণ কোরিয়ার চিফ অব স্টাফ জানিয়েছেন, দক্ষিণ পিয়নগান প্রদেশ থেকে উত্তর কোরিয়া এই ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করে। উত্তর কোরিয়া বলেছে, তারা আমেরিকার সঙ্গে আবার পরমাণু আলোচনায় বসতে প্রস্তুত রয়েছে এবং সে আলোচনা চলতি মাসের শেষের দিকে হতে পারে। তবে আমেরিকাকে সতর্ক করে পিয়ংইয়ং বলেছে, আলোচনা হতে হবে একেবারেই নতুন দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে।

গত ফেব্রুয়ারি মাসে ভিয়েতনামের রাজধানী হ্যানয়ে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উন এবং মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে বৈঠকে বসেছিলেন তবে সে বৈঠক ব্যর্থ হয়। এরপর ৩০ জুন নতুন করে বৈঠকে বসার ব্যাপারে সম্মতি দিয়েছিলেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিন্তু সে বৈঠক হয় নি। এ সময়ের মাঝে উত্তর কোরিয়া কয়েকদফায় বিভিন্ন পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছে।

গতকালের (সোমবার) ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার ব্যাপারে মার্কিন প্রশাসনের একজন কর্মকর্তা বলেছেন, “উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার বিষয়ে আমরা সতর্ক আছি, আমরা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি এবং এ নিয়ে আমাদের আঞ্চলিক মিত্রদের সঙ্গে প্রতিনিয়ত আলোচনা করছি।” উত্তর কোরিয়ার এই বৈঠকের ঘোষণা সম্পর্কে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে গতকাল সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, “এ ধরনের বৈঠক আগ্রহ-উদ্দীপক। আমি সবসময় বলি আলোচনা ভালো কিছু, মন্দ কিছু নয়। দেখা যাক কি হয়।” তবে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র বলেছেন, “আমরা এখনো এ ধরনের কোনো বৈঠকের কথা ঘোষণা করি নি।”