টিডিএন বাংলা ডেস্ক: শুধুমাত্র ধর্মীয় পরিচয়ের কারণে দুই মুসলিম যুবককে চাকরি দিতে অস্বীকার করা হয়েছে, এই অভিযোগ উঠল এক প্রখ্যাত মোবাইল ব্যান্ড ‘ অপ্পো ‘ কোম্পানির বিরুদ্ধে। উত্তরপ্রদেশের নয়ডায় ‘অপ্পো’ কোম্পানি ‘মুসলিম হওয়ার কারণে’ চাকরি দিতে না চাও যায় ২৬ বছরের যুবক সাহিদ আনসারি নিজের গ্রামে ফিরে গেলেন।বাধ্য হয়ে গ্রামে ফিরে তাঁর বাবার জুতোর মিস্ত্রির কাজে সহকারী হিসাবে কাজ করাকেই বেছে নিলেন তিনি।

জানা গেছে,সাহিদ আনসারি মধ্যপ্রদেশের বিশালপুর গ্রামের বাসিন্দা। তাঁর গ্রামটি বরুন গান্ধীর নির্বাচনী ক্ষেত্র উত্তরপ্রদেশের পিলভিত কেন্দ্রের মধ্যে পড়ে। ভালো কাজের সন্ধানে সাহিদ দিল্লিতে গিয়েছিলেন। সেখান থেকে গ্রেটার নয়াডার কাসনা এলাকায় ‘অপ্পো’ কোম্পানির যে কারখানা রয়েছে, সেখানে কিছু দফতরে কর্মীর প্রয়োজন আছে জানতে পেরে আবেদন করেছিলেন সাইদ। তাঁর সঙ্গে আজাদ আনসারি নামে আরও এক যুবক একটি গ্রুপের হয়ে মোবাইল অপারেটর পদের জন্য ইন্টারভিউয়ে হাজির হয়েছিলেন।আর আগে এই কোম্পানিতে প্রায় পাঁচ মাস চুক্তির ভিত্তিতে কাজ করার অভিজ্ঞতা ছিল সায়িদের। কিন্ত তা সত্ত্বেও গ্রুপের অনন্যাদের চাকরি দেওয়া হলেও সাহিদ ও আজাদকে নিয়োগে আপত্তি জানানো হয় বলে অভিযোগ।

স্বভাবতই সাহিদ ধর্মীয় পরিচয়কে চাকরি না পাওয়ার কারণ হিসেবে মনে করছেন। উর্দুতে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ ছাড়াও পলিটেকনিক ডিগ্রি ছিল সায়িদের।সেই যোগ্যতার কারণে এই মোবাইল কোম্পানিতে গতবছরে ২৩ জুলাই থেকে ২৩ ডিসেম্বর পযন্ত চুক্তির ভিত্তিতে কাজ করেন। তারপর তাঁদেরকে দু’মাসের জন্য বসিয়ে দিয়ে বলা হয়,এরপর বরাবরের জন্য তাঁকে নেওয়া হবে। গত ৯ ফেব্রুয়ারি তাঁকে কন্ট্রাক্টর ফোন করে কোম্পানিতে যোগ দিতে বলেন, তখন আশার আলো দেখেছিলেন।এরপর যথারীতি ইন্টারভিউও হয়।এমনকী একটি কার্ড দিয়ে বলা হয়,২-৩ দিনের মধ্যেই চাকরিতে যোগ দেওযার জন্য জানানো হবে।