টিডিএন বাংলা ডেস্ক : বুধবার আন্তর্জাতিক যোগ দিবস উপলক্ষ্যে দেশজুড়ে উদযাপিত

হল ‘যোগ দিবস’। দেশের বিভিন্ন রাজ্যে রাজনীতিবিদ থেকে শুরু করে আমলা অনেকেই সামিল যোগ দিবসে। কিন্তু মধ্যপ্রদেশ থেকে উত্তরপ্রদেশ বেশ কিছু রাজ্যে দেখা গেল উল্টো চিত্র। যোগ দিবসে কোথাও ‘শবাসন’, আবার কোথাও সড়ক অবরোধ করে প্রতিবাদ দেখাল কৃষকরা।

বেশ কিছুদিন আগে কৃষকদের ঋন মকুব ও ফসলের ন্যায্য মূল্যের দাবিতে মধ্যপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র সহ অনেক রাজ্য কৃষক আন্দোলনে  উত্তাল হয়ে উঠেছিল। আজ কৃষক ও মধ্য প্রদেশের কংগ্রেস নেতারা দুই সপ্তাহ আগে  পুলিশের গুলিতে নিহত কৃষকদের শাস্তির দাবিতে এবং তাদের তাদের ন্যায্য দাবি পূরনের জন্য বুধবার আন্তর্জাতিক যোগ দিবস উপলক্ষে ‘শবাসন’ অর্থাৎ মৃত শরীরের মত অঙ্গবিন্যাসের মাধ্যমে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে তাদের প্রতিবাদ দেখাল।

প্রতিবাদটি কংগ্রেসের মধ্য প্রদেশের রাজ্য সভাপতি অরুণ যাদবের নেতৃত্বে ভোপালের পার্টি অফিসের সামনে সংগঠিত হয়, যেখানে পার্টির সদস্যরা ও কর্মীরা রাস্তায় নেমে আসে।

যাদব অভিযোগ করে বলেন, রাজ্যের কৃষকরা খুব খারাপ অবস্থায় আছে। কৃষকেরা যখন তাদের অধিকার দাবি করে তখন তাদের গুলি করা হয়।

তারা তাদের ফসলের জন্য সঠিক দাম পাচ্ছে না। কৃষকরা আত্মহত্যা করছে, কিন্তু রাজ্য সরকার তাদের ব্যাপারে সম্পূর্ণ উদাসীন। তাই তাদের দাবিকে শ্রদ্ধা জানিয়ে এই প্রতিবাদ।

ভারত কৃষক ইউনিয়নের (বিকেইউ) সদস্যরা এবং তাদের সমর্থকরাও ‘শবাসন’-র মাধ্যমে প্রতিবাদের মধ্য দিয়ে মধ্যপ্রদেশের কৃষকদের পরিবারের জন্য অবিলম্বে ক্ষতিপূরণ দাবি জানায়।

উত্তরপ্রদেশে যখন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এবং প্রধানমন্ত্রী মোদী যোগে ব্যস্ত তখন, শত শত কৃষক ‘শবাসন’ পালন করতে সড়ক ও মহাসড়ক অবরোধ করে।

এছাড়া বুধবার দৌরালা এলাকায় দিল্লি-দেরাদুন মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ করে এবং মওয়ানা শহরে দিল্লি-পাউরি মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় ভারত কৃষক ইউনিয়নের সদস্য ও কৃষরা। তাদের মতে, এর মাধ্যমে তারা সরকারকে বার্তা দিতে চায় যে, কৃষকদের দাবি পূরন না হলে তাদের আত্মহত্যা ছাড়া কোন উপায় নেয়।