প্রতীকী ছবি

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: একদিকে বছর খানেক থেকে লাগাতার শ্রমিক ছাঁটাই, অন্যদিকে চলমান অর্থনৈতিক মন্দা। উৎসবের মরসুমেও চরম দুর্ভোগে গুজরাট রাজ্যের সুরাটের হীরে শ্রমিকরা। দেশজুড়ে যখন সকলে আনন্দ উৎসবে মেতে উঠেছে, ঠিক তখন মন্দার কবলে চোখে জল শ্রমিকদের। বাধ্য হয়ে আত্মহত্যার পথও বেছে নিচ্ছেন শ্রমিকরা।

গুজরাটের সুরাট মূলত হীরক নগরী নামেই বেশি পরিচিত। এখানে বাসিন্দারা হীরে কাটা, হীরে পালিশের কাজ করেন। নোটবন্দি থেকে জিএসটি সার্বিক সমস্যায় পড়ে এখনও পেশাগতভাবে উতরে উঠতে পারেননি হীরে শ্রমিকরা। তারই মাঝে আবার গত বছরের ডিসেম্বর থেকে লাগাতার শ্রমিক ছাঁটাই। পাশাপাশি সম্প্রতি দেশজুড়ে অর্থনৈতিক মন্দার জেরে আরো শ্রমিক ছাঁটাই। সার্বিক সমস্যায় চোখে জল এসেছে তাদের। বাড়ছে হীরে শ্রমিকদের আত্মহত্যার প্রবণতা। গত সপ্তাহেই পাচঁজনেরও বেশি শ্রমিক আত্মহত্যা করেছেন বলে সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর।

সুরাটের ‘ডায়মন্ড ওয়ার্কার্স অ্যাসােসিয়েশন’র দেওয়া তথ্য অনুসারে গুজরাটে প্রায় ২৫ লক্ষ মানুষ হীরে পালিশের কাজের সাথে যুক্ত। কিন্তু সাম্প্রতিক কয়েক সপ্তাহে কমপক্ষে ৬৬ হাজার শ্রমিক কাজ হারিয়েছেন। স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানাচ্ছেন, বাজারে ব্যাপক মন্দা হওয়ায় গত চারমাসেই শুধু কারখানার উৎপাদন প্রায় ৩০ শতাংশ কমেছে। ঠিকমতো বেতন দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। ফলে কর্মী ছাঁটাই করতে বাধ্য হচ্ছেন। যদিও হীরের ব্যবসায় মন্দার জন্য চীন – মার্কিন বাণিজ্য বিরােধকেই দায়ী করেছেন
হীরে ব্যবসায়ীদের সংগঠন ‘জেম জুয়েলারি এক্সপাের্ট প্রােমােশন কাউন্সিল (জিজেইপিসি)’র সভাপতি দীনেশ নাদিয়া।