টিডিএন বাংলা ডেস্ক : দিল্লিতে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়কে পেলে তার সঙ্গে বৈঠকে বসতে চান সোনিয়া গান্ধি। একই ধরনের ইচ্ছা মমতারও রয়েছে। ইতোমধ্যে এ বৈঠকের আমন্ত্রণও পেয়েছেন মমতা। কংগ্রেস সূত্র বলছে, সোনিয়ার সঙ্গে মমতার যখন কথা হবে তখন সেখানে রাহুল গান্ধিও থাকতে পারেন। সোনিয়ার রাজনৈতিক সচিব আহমেদ প্যাটেল বলছেন, ‘নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে দু’টি ফ্রন্ট হওয়া কাম্য নয়। মোদিবিরোধী মঞ্চে আমরা সকলে একজোট হব।’ আজ মমতার দিল্লি পৌঁছানোর কথা। সোনিয়ার শরীর ভালো থাকলে মঙ্গলবার তাদের বৈঠক হতে পারে।

উত্তরপ্রদেশ ও বিহারের উপনির্বাচনে বিজেপির পরাজয়ের পর ভারতীয় রাজনীতিতে বিজেপিবিরোধী একটা জোট ওঠার প্রবণতা দেখা গেছে। অবশ্য উত্তর প্রদেশে সর্বশেষ লোকসভা উপনির্বাচনে আগের হারের বদলা নিয়েছে বিজেপি। তৃণমূলের সমর্থনে কংগ্রেস মুখপাত্র অভিষেক রাজ্যসভায় নির্বাচিত হওয়ার পরে জাতীয় স্তরে কংগ্রেস-তৃণমূল কাছাকাছি এসেছে বলে মনে করা হচ্ছে।

এদিকে দেশের রাজনীতিতে বিজেপিবিরোধী যে জোট গড়ে উঠছে তা ভাঙতে মাঠে নেমেছেন বিজেপির শীর্ষ নেতারা; যার নেতৃত্বে রয়েছেন নরেন্দ্র মোদি ও অমিত শাহ। আবার মোদিবিরোধিতার রাশ কংগ্রেসের হাতে ছেড়ে দিতে নারাজ আঞ্চলিক বা অন্য বিরোধী দলগুলো। আর এ কারণে কংগ্রেসকে বাদ দিয়ে আগে নিজেদের মধ্যে জোট গড়ার চেষ্টা করে যাচ্ছে বিরোধী দলগুলো। এ অবস্থায় শেষ পর্যন্তও যদি কংগ্রেস মোদিবিরোধী কোনো জোট গড়তে না পারে তবে প্রতিরাজ্যে আসন সমঝোতার পথে হাঁটতে পারে তারা। প্রয়োজনে মমতাকে আহ্বায়ক করে একটি কমিটি গড়তেও রাজি কংগ্রেস।