টিডিএন বাংলা ডেস্ক: সম্প্রতি হিন্দিকে রাষ্ট্রভাষা করার প্রস্তাব নিয়ে তোলপাড় হয়ে উঠেছিল দেশীয় রাজনীতি। ঠিক তার পরেই তার মন্তব্য নিয়ে ব্যাখ্যা করলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। আজ এক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে তার দাবি, তিনি কখনোই হিন্দি ভাষা চাপিয়ে দেওয়ার কথা বলেননি। তাঁর মন্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করা হচ্ছে এবং সেটা নিয়ে রাজনীতি করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, এক দেশ এক ভাষা নিয়ে বারবার বিতর্ক তৈরি হয়েছে গোটা দেশে। কেন্দ্র সরকার এর আগে একাধিকবার হিন্দি ভাষা বাধ্যতামূলক করার চেষ্টা করলেও বিভিন্ন রাজ্য বিশেষ করে দক্ষিণী রাজ্যগুলো তার তীব্র বিরোধিতা করেছে। ফলে পিছু হটতে বাধ্য হয়েছে কেন্দ্র সরকার। কিন্তু সম্প্রতি অমিত শাহ ফের এক ট্যুইটে লিখেন, “ভারত বহু ভাষাভাষীর দেশ। সব ভাষারই নিজস্ব গুরুত্ব থাকলেও দেশের একটা সাধারণ ভাষা থাকা জরুরী যা গোটা বিশ্বের কাছে পরিচয় বহন করবে। ” শাহের এই মন্তব্যের পর থেকেই দেশজুড়ে বিতর্কের সৃষ্টি হয়। অমিত শাহের হিন্দি প্রস্তাবের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে শুরু করে কুমারস্বামী, স্ট্যালিন, অভিনেতা কমল হাসান, রাহুল গান্ধীরা। তারপরেই মুখ খুললেন অমিত শাহ। তিনি বলেন, ‘‘আমি কখনও আঞ্চলিক ভাষাগুলির উপর হিন্দি চাপিয়ে দেওয়ার কথা বলিনি। বরং মাতৃভাষার সঙ্গে দ্বিতীয় ভাষা হিসেবে হিন্দি শেখার কথা বলেছিলাম।’’