টিডিএন বাংলা ডেস্ক: বিতর্কই যেন তার নিত্য দিনের সঙ্গী। লোকসভা নির্বাচনের প্রচারের সময় একাধিক বেফাঁস মন্তব্য করে বিতর্কে জড়িয়েছিলেন মালেগাওঁ বিস্ফোরণ কাণ্ডে অভিযুক্তা ও ভোপালের বিজেপি সাংসদ সাধ্বী প্রজ্ঞা ঠাকুর। সোমবার ১৭তম লোকসভার শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানেও তিনি বিতর্কে জড়ালেন। নিজের নামের সঙ্গে আধ্যাত্মিক গুরুর নাম যোগ করে বিতর্ক সৃষ্টি করেন তিনি। ফলে বিরোধীরা প্রবল আপত্তি তোলেন। সেই সময় সাধ্বী জানান আগেই তিনি শপথ গ্রহণের ফর্মে উল্লেখ করে দিয়েছেন তার পুরো নাম।

নিজের নামের শেষে স্বামী চেতনানন্দ অবধেশনন্দ গিরি’র নাম যোগ করায় আপত্তি তোলেন বিরোধীরা। বিরোধীদের মতে, এটা একদমই অনুমোদন করা যায় না।

শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে যিনি সাময়িক স্পিকার হিসাবে পরিচালনা করছিলেন সেই বীরেন্দ্র কুমার জানান একমাত্র নির্বাচনী শংসাপত্রে উল্লিখিত নামই গ্রাহ্য করা হবে।

মালেগাওঁ বিস্ফোরণ কাণ্ডে অভিযুক্তা সাধ্বী প্রজ্ঞা বক্তৃতা করেন সংস্কৃতে এবং বক্তৃতা শেষ করেন ‘ভারত মাতার জয়’ স্লোগান দিয়ে। প্রত্যেক বিজেপি সাংসদই তাদের বক্তৃতা শেষ করেন ওই স্লোগান দিয়ে। এর ফলে অনুষ্ঠান চলাকালীনই এই নিয়ে আপত্তি তোলেন আরএসপি নেতা এনকে প্রেমচন্দ্রন। স্পিকারকে অনুরোধ করেন নির্দিষ্ট পদ্ধতি মেনে যাতে বক্তৃতা দেওয়া হয়। যদিও এই অনুরোধ পাত্তা না দিয়েই বিজেপি সাংসদরা সকলেই বক্তৃতা শেষ করেন ওই স্লোগান দিয়েই।