টিডিএন বাংলা ডেস্ক : উত্তর প্রদেশে রোড শো। তারপর ম্যারাথন বৈঠক। এরপর খোদ মোদীর খাস তালুকে দাঁড়িয়ে তাঁকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিলেন প্রিয়ঙ্কা গান্ধী বঢরা। বুঝিয়ে দিলেন আগামীর রাজনীতি তাঁকে সমীহ করেই চলবে। কারণ? মোদীরা যখন দেশে জাতীয়তাবাদের হাওয়া তুলতে ব্যস্ত, তখন প্রিয়ঙ্কা মোদীর গড়ে দাঁড়িয়ে বললেন, স্বাধীনতার চেয়ে কোনো অংশে কম নয়, এই লড়াই। এবার কাশী থেকে এলাহাবাদ- জলপথে নির্বাচনী সফর করবেন তিনি।

সদ্য সক্রিয় রাজনীতিতে আসা প্রিয়ঙ্কা গঙ্গাবক্ষে ১০০ কিমি সফর করে কাশী থেকে এলাহাবাদ পৌঁছবেন। উত্তরপ্রদেশে নির্বাচনী প্রচারে চমক আনতেই জলপথে সফর করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এইআইসিসি-র সদ্য দায়িত্বপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক।

এলাহাবাদ থেকেই উত্তরপ্রদেশে নির্বাচনী প্রচার শুরু করবেন প্রিয়ঙ্কা। কারণ? এলাহাবাদ দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর প্রপিতামহ জওহরলাল নেহরুর জন্মস্থান। আবার বারাণসী হল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর লোকসভা কেন্দ্র। এলাহাবাদে ঐতিহাসিক আনন্দ ভবনে যাবেন প্রিয়ঙ্কা। বর্তমানে সরকারি সংগ্রহশালা এই আনন্দ ভবনেই এক সময় থাকত নেহরু পরিবার।
মীরজাপুরে বিন্ধ্যাচল দেবী মন্দির এবং কাশীর বিশ্বনাথ মন্দিরে পুজো দেওয়ারও কথা আছে তাঁর।

সোশ্যাল মিডিয়াকে হাতিয়ার করে হাইটেক প্রচার করেছেন মোদী। আবার অভিনবত্বের দাবিদারও তিনি। প্রিয়ঙ্কা যে কম যান না, তা বুঝিয়ে দিলেন রাজনীতির শক্ত মাটিতে পা দিয়েই।