টিডিএন বাংলা ডেস্ক: আরএসএস কীভাবে জনসংযোগ করে তা শেখা উচিত। ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টির প্রধান শরদ পাওয়ারের মুখে আরএসএসের জয়গান শুনে জল্পনা তৈরি হয়েছে। দলের কর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, নির্বাচনের সময়ে বেরিয়ে আমাদের কর্মীরা যদি দেখেন কারও দরজা বন্ধ, তাহলে দরজার সামনে প্রচারপত্র রেখে চলে আসেন, আরএসএসের কর্মীরা হলে দরজা খুলে কথা বলেন আসেন। তাঁর এই মন্তব্য ঘিরে জল্পনা তৈরি হয়েছে।

পাওয়ার বলেন, একজন আরএসএস কর্মীকে যদি ৫ টি বাড়ির দায়িত্ব দেওয়া হয়, তাহলে সেই কর্মী প্রতিদিন বাড়িগুলিতে যাবেন ও সদস্যদের সঙ্গে কথা বলবেন। এটা আমাদের কর্মীদের শেখা উচিত।

তিনি আরও বলেন, এনসিপির সঙ্গে আরএসএসের আদর্শগত পার্থক্য রয়েছে। তা সত্ত্বেও দলের প্রতি নিষ্ঠা, আনুগত্য যেকোনও দলের কর্মীদের শেখা উচিত।

এবার লোকসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বতা করেননি পাওয়ার। পুনের এক কর্মিসভায় তিনি এই বার্তা দেন। এবার নাতিকে জায়গা করে দিতে সরে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। মহারাষ্ট্রের এই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ১৯৯১ সাল থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত লোকসভার সাংসদ ছিলেন। ইউপিএ আমলে শরদ পাওয়ারকে খাদ্য ও কৃষি মন্ত্রকের দায়িত্ব দেওয়া হয়। বর্তমানে তিনি রাজ্যসভার সাংসদ।