টিডিএন বাংলা ডেস্ক: স্বদেশি জাগরণ মঞ্চের নেতা ও বিজেপির থিঙ্ক ট্যাঙ্কের প্রাক্তন সদস্য গোবিন্দআচারিয়া ও তাঁর অনুগামীরা সরাসরি নোটার পক্ষে প্রচার করছেন। কী এই নোটানান অফ দি এবাভ- অর্থাৎ ইভিএমে যদি কোনো প্রার্থী আপনার পছন্দ না হয়, তাহলে আপনি নোটা বাটন টিপে জানান দিতে পারেন, কোনো প্রার্থী আপনার পছন্দ নয়। এটা একজন নাগরিকের গণতান্ত্রিক অধিকারের মধ্যে পড়ে। উত্তর প্রদেশ, বিহার ও মধ্যপ্রদেশের মতো হিন্দি বলয়ে নোটার প্রচারে ঝড় তুলতে শামিল আরএসএসও। নরেন্দ্র মোদীর কেন্দ্র বারাণসীতেও কাউকে ভোট না দেওয়ার পক্ষে জোর প্রচার চলছে।

বিজেপি নেত্রী উমা ভারতীর প্রাক্তন প্রচার ম্যানেজার ও আজাদি বাঁচাও আন্দোলনের প্রাক্তন কর্মী রূপেশ পাণ্ডে বলেন, এইবার বারাণসীতে অন্তত ১ লাখ ভোটার নোটা বটন প্রেস করবেন।

গোবিন্দআচারিয়া বলেন, বিশাল সংখ্যক আরএসএস কর্মীরা নোটার হয়ে প্রচার করছেন। যাতে নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় সংস্কার আনার জন্য চাপ সৃষ্টি করা যায়।

পাণ্ডে বলেন, ১৫ মার্চ নোটা ক্যাম্পেনের জন্য বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের ৩০০ প্রতিনিধি বারাণসীতে বৈঠক করেন। তারপর ঠিক হয়, মানুষকে এব্যাপারে বোঝানো হবে। সেই কাজ চলছে। তিনি আরো বলেন, এবার অনেক বিজেপি সমর্থক নোটায় ভোট দেবেন। কারণ তাঁরা দলের সংরক্ষণ, জিএসটি ও নোট বাতিলের মতো ইস্যুগুলির সঙ্গে সম্পূর্ণ ভিন্ন মত। অনেকেই মনে করছেন, তাঁরা কোনও দলের প্রার্থীকে ভোট দেবেন না।

পাণ্ডে বলেন, পুরনো বারাণসীতে মানুষের মধ্যে বিশাল ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রকল্প বিশ্বনাথ করিডরকে রূপ দিতে অনেক বাড়ি ভেঙে ফেলা হয়েছে। পাক্কা মহলের অনেক বাসিন্দাই বিজেপিকে ভোট দিতে যাবেন না। তাঁরা নোটার পক্ষে।