টিডিএন বাংলা ডেস্ক: এবিভিপি দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের উত্তর ক্যাম্পাসে রাতারাতি বীর সাভারকর, সুভাষ চন্দ্র বোস এবং ভগত সিংয়ের মূর্তি স্থাপন করে। দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট শক্তি সিং সোমবার গভীর রাতে কলাবিভাগের গেটে এই তিনটি প্রতিমা স্থাপন করেছিল। এর প্রতিবাদে এনএসইউআই বীর সাভারকারের মূর্তিকে জুতার মালা পরিয়ে দেয় এবং প্রতিমার মুখের উপর কালি লাগিয়ে দেই। প্রশাসনের অনুমতি না নিয়েই এবিভিপি এই প্রতিমাগুলি এখানে স্থাপন করেছিল।

এ সম্পর্কে এনএসইউআই এর জাতীয় সচিব সাইমন ফারুকী বলেছেন, এবিভিপি সর্বদা সাভারকরকে তার পরামর্শদাতা হিসাবে বিবেচনা করে আসছে। ব্রিটিশ শাসনের সামনে করুণার জন্য ভিক্ষা করা সত্ত্বেও, এবিভিপি এই মতাদর্শের প্রচার করতে চায়। আমি সবাইকে মনে করিয়ে দিতে চাই যে সাভারকর ভারত ছাড়ো আন্দোলনের বিরোধিতা করে এবং তেরঙ্গা উত্তোলন করতে অস্বীকার করেছিলেন। এই সাভারকরই ভারতের সংবিধান প্রত্যাখ্যান করে মনুস্মৃতি ও হিন্দু রাষ্ট্রের দাবি করেছিলেন।

সাইমন ফারুকী বলেছে, সাভারকরকে শহীদ ভগত সিং ও সুভাষ চন্দ্র বসুর সাথে তুলনা করা আমাদের শহীদ ও তাদের স্বাধীনতা সংগ্রামের অপমান। একটি দেশবিরোধী ব্যক্তির উপরে সেরা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র ইউনিয়ন অফিসের নামকরণ, বিশ্ববিদ্যালয় এবং এর ছাত্রদের অপমান। এটি এবিভিপির ভুয়া-জাতীয়তাবাদের উদাহরণ। একই সাথে ডাসু সভাপতি শক্তি সিং বলেছেন যে, তিনি মুর্তিটি বসানোর করার জন্য দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের কাছে বহুবার দাবি করেছিলেন, তবে তারা তা শোনেননি। এর আগে দুসু উত্তর ক্যাম্পাসের নাম বীর সাভারকারের নামে রাখার দাবি ছিল। সম্প্রতি শক্তি সিং উত্তর ক্যাম্পাসের নাম বীর সাভারকারের নামকরণের দাবি উত্থাপন করেছিল। কিছু দিন পরে বীর সাভারকারের সাথে ভগত সিং ও বোসের মূর্তি উত্তর ক্যাম্পাসের গেটে স্থাপন করা হয়েছে।