টিডিএন বাংলা ডেস্ক: মার্কিন এক রিপোর্টের দাবি বিজেপির আমলে মুসলিমদের উপর সবচেয়ে নিপীড়ন ও অত‍্যাচার  বেড়েছে। তবে বিজেপি এই রিপোর্ট কে অস্বীকার করলেও এটাই সত্য। কেন্দ্রে আবার বিজেপি আসায় দেশে মুসলিমদের উপর হিন্দুত্ববাদীদের অত‍্যাচার চরম মাত্রায় বেড়েছে। শুধু সংখ্যালঘু মুসলিমদের উপর অত‍্যাচার বেড়েছে তাই নয়, বিজেপির আসার পর দেশে কোনো শ্রেণীনই সুরক্ষিত নয়। সংবাদ মাধ্যম বারবার আক্রান্ত হচ্ছে। দলিলদের পিটিয়ে হত্যা করা হচ্ছে। কখনও বা আবার উচ্চশিক্ষিত ব‍্যক্তিদের উপর হামলা করা হচ্ছে। আবার কখনও দেশের বিভিন্ন প্রান্তে জোর করে জয় শ্রীরাম বলানো হচ্ছে। আর না বললেই বিভিন্ন ভাবে নিগ্ৰহ ও অত‍্যাচার করা হচ্ছে  এমনকি পিটিয়ে হত্যা করা হচ্ছে।

এবার খোদ রাজধানী দিল্লির বুকে জয় শ্রীরাম না বলায় এক মুসলিম অত‍্যাচার ও নিগ্ৰহের শিকার হলেন। জোর করে তিন অজ্ঞাত পরিচয় ব‍্যক্তি মুহাম্মাদ মোমিন নামের এক মুসলিম যুবককে জয় শ্রীরাম বলানোর চেষ্টা করা হয়। মোমিনের অভিযোগ, সে বলতে রাজি না হলে, তার উপর অত্যাচার করা হয়। তাকে প্রচন্ড মারধর করা হয়। এমনকি গাড়ি চাপা দিয়ে মারার চেষ্টা করে ওই তিন ব‍্যক্তি।

মুহাম্মদ মোমিন সংবাদ মাধ্যম কে আরও জানান, শুক্রবার রাত ৮ টা নাগাদ আমি একটু বেরিয়েছিলাম। হঠ‍্যাৎই আমার সামনে সাদা রঙের একটা চারচাকা গাড়ি এসে দাঁড়ায়। গাড়ির ভিতরে যারা ছিলেন তারা আমাকে ডাকেন। আমি ভেবেছিলাম ঠিকানা জিজ্ঞাসা করার জন্য হয়তো ডাকছে। এই ভেবে আমি তাদের দিকে এগিয়ে যায়। গাড়ির কাছে যেতেই তারা আমাকে জয় শ্রীরাম বলার জন্য জোর করে। আমি তাতে রাজি না হওয়ায় তারা আমার উপর অত্যাচার শুরু করে। এমনই অভিযোগ মুহাম্মদ মোমিনের।

মোনিনের আরও অভিযোগ করেন যে, এরপরই তারা আমাকে গাড়িতে ধাক্কা মেরে চলে যায়। গুরুতর জখম মুহাম্মদ মোমিন কে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

রোহিনির ডেপুটি কমিশনার অফ পুলিশ এসডি মিশ্র এ প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, ঘটনাটি যে সময়ে ঘটে ওই সময়ের সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পাশাপাশি প্রত‍্যক্ষদর্শীদেরও বয়ান রেকর্ড করা হচ্ছে। খুব শীর্ঘই অভিযুক্তদের গ্ৰেফতার করা হবে।