টিডিএন বাংলা ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নিজেকে ‘চা-ওয়ালা’ ‘চৌকিদার’ বলে সম্মেধন করে থাকেন। শুধু তাই নয়, ‘ফকির আদমি ! কোলা নিয়ে বেরিয়ে পড়বো’- গোছের মন্তব্য করতেও দেখা গিয়েছি প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী যতই নিজেকে ‘গরিব আদমি’ হিসাবে তুলে ধরতে চেষ্টা করুক না কেন, তার আড়ালে তাঁর বিলাসবহুল জীবনযাত্রা দিখলে চক্ষু চড়কগাছ হওয়ার উপক্রম। দিল্লির লুটিয়েন্স ১২ একর জমির উপর রয়েছে তাঁর সরকারি বাসভবন। বিলাসবহুল সেই বাসভবনে শোভাখচিত পুষ্প বাগান দেখভালের জন্য রয়েছে ৫০ জন মালি। রয়েছেন ঘর সাজানো-গোছানোর , রান্নার ও বৈদিক কাজ কর্মেরজন্য আলাদা আলাদা লোক। এ ছাড়াও স্টাইলিশ হেয়ার স্টাইলের জন্য রয়েছে নামকরা ক্ষোরকাররা। কেতাদুরস্ত সাজ পোশাকের জন্য বিখ্যাত ফ্যাশন ডিজাইনার। সর্বক্ষণের জন্য রয়েছেন চিকিৎসক ও নার্সরা।

কোটি টাকা খরচ করে এই পরিষেবা সর্বক্ষণ চালু রাখা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী জাতায়াতের জন্য রয়েছে পাঁচটি বিলাসবহুল বুলেটপ্রুফ বিএমডব্লিউ সেডান কার।রয়েছে রেঞ্জ রোভারও। আকাশপথে যাতায়াতের ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী ব্যাবহার করেন এয়ার ইন্ডিয়া, বোয়িং ৭৪৭। তথ্য জানার অধিকার আইনে করা এক মামলায় জানা গিয়েছে , শুধুমাত্র বিদেশ সফরে প্রধানমন্ত্রী ৪৪৩.৪ কোটি টাকা খরচ করেছেন।তবে,দেশের অভ্যান্তরে যাতায়াতে প্রধানমন্ত্রীর বিমান খরচ কত, তা অবশ্য জানাননি পিএমও অফিস।গত চারবছরে প্রচারের পিছনে ৪,৪০০ কোটি টাকা ব্যয় করেছেন প্রধানমন্ত্রী। আর প্রধানমন্ত্রীর প্রচারে ফেসবুক ও সোশ্যাল মিডিয়ায় নিয়োজিত বিপুল সংখ্যক কর্মী মিলিয়ে তা কোটি টাকার ইন্ডাস্ট্রি।

১০ লক্ষ টাকার শ্যুট পড়া প্রধানমন্ত্রীর রয়েছে ইতালির বিখ্যাত লাক্সারি জুয়েলারি ব্র্যান্ড বুলগ্যারির চশমা,মেবাদো ঘড়ি ও মনটা ব্ল্যাক পেন। প্রধানমন্ত্রীর হেয়ার ড্রেসার তথা সদ্য যোগ দেওয়া জাভেদ হাবিব জানান,প্রতি সপ্তাহে হেয়ার কাট করা হয় প্রধানমন্ত্রীকে। প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন কমিশন- কে যে হলফনামা দিয়েছেন, তাতে উল্লেখ করা হয়েছে নগদ অর্থ বাদে ব্যাংকে সেভিংস  আজাউন্টে রয়েছে ১ কোটি ৩৯ লক্ষ ৮৩ হাজার ৫৬৯ টাকা। ১ লক্ষ ১৩ হাজার ৮০০ টাকার বাজার মূল্যের গহনা রয়েছে। গান্ধীনগড়ে তাঁর একটি বাড়ি সহ স্থাবর সম্পত্তি রয়েছে ১ কোটি ১০ লক্ষ টাকার।