টিডিএন বাংলা ডেস্ক: শনিবার বারাব্যাঙ্কি জেলার রুনাহী টোল প্লাজার কাছে ম্যাগসেসে অ্যাওয়ার্ড বিজয়ী সন্দীপ পান্ডে এবং আরও বেশ কয়েকজন সমাজকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। শান্তি ও সম্প্রীতির প্রচারের জন্য আচার্য যুগল কিশোর শাস্ত্রীর আয়োজিত সম্মেলনে যোগ দিতে অযোধ্যা যাওয়ার সময় সকাল ১১ টায় তাদের আটক করা হয়।

সন্দীপ পান্ডের সাথে অন্য যারা ছিলেন তাদের মধ্যে অন্যতম সমাজকর্মী ও লেখক রাম পুনিয়ানি, রিহাই মঞ্চের রাজীব যাদব, কর্মী অনুরাগ শুক্লা এবং হাফিজ কিদওয়াই। মুম্বইয়ে ফেরার জন্য বিমানের টিকিট থাকায় রাম পুনিয়ানিকে ফেরত পাঠানো হয় লখনৌতে। তবে রুনাহী টোল প্লাজায় বাকী লোকজনকে গৃহবন্দী করে রাখা হয়।

রিহাই মঞ্চের প্রেসিডেন্ট অ্যাডভোকেট শোয়েব খান সংবাদ চ্যানেল ইন্ডিয়া টুমরোকে জানান যে, আচার্য জুগল কিশোরকেও অযোধ্যা থেকে আটক করা হয়েছে এবং তাকে রৌনাহীতে আনা হচ্ছে। এই সমস্ত কর্মী লখনউতে স্থানান্তরিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

জম্মু ও কাশ্মীরের কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে মোমবাতি বিক্ষোভের জন্য পান্ডেকে গতকাল সন্ধ্যায় গৃহবন্দি করে রাখা হয়েছিল। সংবিধানের ৩৭০ ধারা ও ৩৫ এ ধারা বাতিলের প্রতিবাদ করায় পান্ডে ও তাঁর স্ত্রী অরুন্ধতী ধুরুকেও ১১ ই আগস্ট গৃহবন্দী করা হয়েছিল। পান্ডের প্রতিবাদে যোগ দিতে চাইলে অ্যাডভোকেট খানকেও গৃহবন্দী করে রাখা হয়।

ইন্ডিয়া টুমরোর তরফ থেকে ফোনে যোগাযোগ করা হলে উত্তর প্রদেশের পুলিশ মহাপরিচালকের জনসংযোগ কর্মকর্তা (পিআরও) আশীষ কুমার দ্বিবেদী বলেছেন, “অনুমতি ছাড়াই তিনি অযোধ্যা যাচ্ছিলেন তাই তাকে আটক করা হয়।” পাশাপাশি
তিনি বলেন, ১৬ আগস্টও তিনি পুলিশের অনুমতি ছাড়াই হজরতগঞ্জে মোমবাতি মিছিল করেন। এজন্য গত সন্ধ্যায় তাকে বাড়িতে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।