সারিফুল আলম,টিডিএন বাংলা,দিল্লি: শ্রীলঙ্কায় সন্ত্রাসী হামলার বিরুদ্ধে দিল্লিতে মানববন্ধন করল সামাজিক কর্মী থেকে শুরু করে সকল ধর্মের মানুষ।এই মানববন্ধন থেকে ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানানো হয়।

মঙ্গলবার ‘ইউনাইটেড এঙ্গেস্ট হেট’ নামে সামাজিক সংগঠনের ব্যানারে নতুন দিল্লিতে অবস্থিত একটি চার্চের সামনে এই মানববন্ধন আয়োজিত হয়।এই মানববন্ধনে মুসলিম থেকে খ্রিস্টান সকল ধর্মের মানুষ সামিল হয়ে শ্রীলঙ্কার পাশে দাঁড়িয়ে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদ ও নিন্দা জানায়।

মানবন্ধনে অংশগ্রহন করেন জমিয়তে উলামা হিন্দের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ মাদানী, জামায়াতে-ইসলামী হিন্দের প্রাক্তন সহ সভাপতি নুসরাত আলী, অল ইন্ডিয়া মুসলিম মজলিস-ই মুশারাতের সভাপতি নাভিদ হামিদ , সামাজিক কর্মী ড. জন দয়াল, এসি মাইকেল ও অপূর্বানন্দ এবং ইউনাইটেড অ্যাংগেস্ট হ্যাটের বিপুল সংখ্যক সদস্য।

সকলেই সন্ত্রাসবাদকে নিন্দা জানিয়ে প্লেকার্ড হাতে করে যে বার্তাগুলি নিয়ে দাঁড়িয়েছিল যেমন “সন্ত্রাসবাদের কোন ধর্ম নেই”, “আমরা কলম্বো, আমরা খ্রিস্টান।

মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী ওসামা আকরাম নামের এক প্রতিবাদকারী জানান,শ্রীলঙ্কায় নৃশংস সন্ত্রাসী হামলায় হতাহতের ঘটনায় আমরা সকলে মর্মাহত। এই ঘটনায় জড়িতদের অবশ্যই আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। যাতে ভবিষ্যতে কেউ এমন কাজ করতে সাহস না পায়।

অপর এক প্রতিবাদকারীর মতে,সন্ত্রাসী হামলার কোন ধর্মীয় রঙ হয় না।যেকোন সন্ত্রাসী হামলার তীব্র নিন্দা জানাই।নিরীহ মানুসের প্রাণ কেড়ে নেওয়া বন্ধ হোক ।কোন বিশেষ সম্প্রদায়কে টার্গেট করে হামলা বন্ধের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হোক।

উল্লেখ্য,গত রবিবার শ্রীলঙ্কায় ইস্টার সানডেতে প্রার্থনারত অবস্থায় ৩টি গির্জা ও ৩টি হোটেলে একের পর এক বোমা হামলা চালানো হয়। এরপর আরও দুই জায়গায় হামলা হয়। এই হামলায় ৩২১ জন নিহত ও ৫০০ জনেরও বেশি মানুষ আহত হয়েছেন।