টিডিএন বাংলা ডেস্ক: অদ্ভূতুরে কাণ্ড লুধিয়ানায়। ওঁরা সব নতুন ভোটার। কারো বয়স ১৮, কারো ১৯। কিন্তু ভোটার তালিকায় ওঁদের জন্ম দেখা যাচ্ছে ১৯০০ সালে। হিন্দুস্তান টাইমসে এই খবর সামনে আসতেই তোলপাড় শুরু হয়েছে। রাজ্য নির্বাচন কমিশন জানাচ্ছে, এটা ক্লারিক্যাল মিস্টেক। অর্থাৎ পেশাদারিত্বের ভুল।

এখানেই শেষ নয়। ভুতুড়ে কাণ্ডে আরো বাকি। ভোটার তালিকায় দেখা যাচ্ছে এক মহিলা ও এক পুরুষ ভোটারের বয়স আড়াইশ ছাড়িয়েছে। অন্য একজনের বয়স ১৪৪। এঁরা কি ভুতের রাজার বর পেয়ে এমন দীর্ঘায়ু লাভ করেছেন? নাকি ভোটার তালিকায় এমন আজব কাণ্ড!

লুধিয়ানার ভোটার তালিকায় বিস্ময়ের আরো অবকাশ আছে। দেখা যাচ্ছে প্রায় ২৭৩ বৈধ ভোটার। এঁদের মধ্যে অনেকেই ১১৮ ছাড়িয়েছেন।

এই ঘটনা সামনে আসার পর পঞ্জাব মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক বলেন, এই রাজ্যে মোট ভোটার ৫৯১৬। ভোটার তালিকায় দেখা যাচ্ছে অনেকের বয়স ১০০। এটা এক ধরণের ভুল। আমরা এই ভুল সংশোধন করব। লুধিয়ানার ডেপুটি কমিশনার প্রদীপ আগরওয়াল বলেন, ইলেকশন রেজিস্ট্রেশন অফিস তথ্য নথিবদ্ধ করতে গিয়ে কিছু ভুল হয়ে গেছে। পরীক্ষা নিরীক্ষার পর ভুল সংশোধন করা হবে। এক নির্বাচনী আধকারিক জানিয়েছেন, ডেটা আপলোড করতে গিয়ে এই ভুল হয়েছে।

ভোটার তালিকায় ২৭৩ জন ভোটারের বয়স ১১৮ ছাড়িয়েছে। যদিও তাঁরা সব নতুন ভোটার। এই ভুলের মাসুল ভোটারদের গুণতে হবে না তো?