টিডিএন বাংলা ডেস্ক : পুলওয়ামা হামলার পর ভারত-পাক ২ দেশের মধ্যে উত্তেজনার পারদ ক্রমশ চড়ছে। ভারত প্রত্যাঘাতের জন্য তৈরি হচ্ছে। কূটনৈতিক স্তরে চাপ দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এই অবস্থায় বসে নেই পাকিস্তানও। তারা ভারতে নিযুক্ত পাক রাষ্ট্রদূতকে ফিরিয়ে নিল নিজেদের দেশে। আগেই তারা পুলওয়ামা হামলার দায় ঝড়ে ফেলেছে।

ভারতে নিযুক্ত পাক রাষ্ট্রদূতকেও ডেকে নিল ইসলামাবাদ। সোমবার সকালে পাক বিদেশমন্ত্রকের তরফে টুইট করে এ কথা জানানো হয়। ট্যুইটারে বলা হয়েছে, আলোচনার জন্য তাঁকে ডেকে পাঠানো হয়েছে।
কাশ্মীরের পুলওয়ামায় আত্মঘাতী হামলায় মৃত্যু হয়েছে ৪০ জনেরও বেশি সিআরপিএফ জওয়ানের। হামলার দায় স্বীকার করেছে জৈশ-ই-মহম্মদ। তারপর থেকেই দুই প্রতিবেশী রাষ্ট্রের মধ্যে সম্পর্ক তলানিতে এসে ঠেকেছে। এই অবস্থায় ভারতে নিযুক্ত পাক হাইকমিশনারকে ডেকে নিয়েছে পাকিস্তান। বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার জন্যই তাঁকে ইসলামাবাদে ডাকা হয়েছে বলে টুইট করে জানিয়েছেন পাক বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র মহম্মদ ফয়জল। সোমবার সকালেই নয়াদিল্লি ছাড়েন তিনি।
গত সপ্তাহে নয়াদিল্লিতে ডাকা হয় পাকিস্তানে নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার অজয় বিসারিয়াকে। পাক হাইকমিশনারকে তলব করে পুলওয়ামা হামলার কড়া নিন্দা করেন ভারতীয় বিদেশ সচিব বিজয় গোখালে।

মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে বিভিন্ন সময় প্রতিবেশী রাষ্ট্রের প্রতি বন্দুত্বের বার্তা দিয়েছে। মোদীর শপথ অনুষ্ঠানে এসেছিলেন তৎকালীন পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। তারপর মোদী লাহোরে ঝটিকা সফরে গিয়ে দেশের অন্দরে বিতর্কে জড়ান। এরপরেও পাকিস্তান থেকে সন্ত্রাসবাদ রফতানি বন্ধ হয়নি। ভারত বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ডশিয়ারে প্রমাণ দিয়েছে, সেদেশে বসেই বারবার ভারতে হামলার ব্লুপ্রিন্ট রচনা করা হয়েছে। তারপরেও পাকিস্তান নড়চেড়ে বসেনি। তাই উরি সেনা ছাউনিতে হামলার পর ভারত সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের মাধ্যমে জবাব দেয়। এরপর কিছুদিন থিতিয়ে ছিল জঙ্গি হামলা। হয়ত জঙ্গিরা গা গরম করছিল পরবর্তী হামলার জন্য! পুলওয়ামা হামলা দেখিয়ে দিল পাকিস্তানের সন্ত্রাস মদত দেওয়ার প্রবণতা এতটুকু কমেনি। তাই এই আবহে দুই দেশের সম্পর্ক যে তলানিতে গিয়ে টেকবে তা বলাই যায়।

Advertisement
mamunschool